সৌদি ফেরত মেয়েকে আনতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন বাবা!

ঢাকা সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের মাধবপুরে  সড়ক দূর্ঘটনায় অনু মিয়া (৫০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। আশংকাজনক অবস্থায় একজনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সোমবার (২৪ ডিসেম্বর) রাত দেড়টার সময় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মাধববপুর হরিশ্যামা সেমকো-সিএনজি পেট্রোল পাম্প এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত অনু মিয়া চুনারুঘাট উপজেলার সাদ্দাম বাজার গণকিরপাড় গ্রামের মৃত ইউসুফ মিয়ার ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুর্ঘটনায় নিহত অনু মিয়ার বড় মেয়ে সেলিনা আক্তার সৌদি আরব থেকে মঙ্গলবার সকালে দেশে আসছেন। তাই বুধবার রাতেই মেয়েকে আনতে জামাতা ও পরিবারের লোকজনসহ ঢাকা যাচ্ছিলেন তারা। পথিমধ্যে মহাসড়কের হরিশ্যামা সেমকো-সিএনজি পাম্প এলাকায় পৌঁছলে সড়কে দাড়িয়ে থাকা একটি রোলার এর সাথে ধাক্কা লেগে মাইক্রোবাসটি দুমরে-মুচরে যায়। এসময় ঘটনাস্থলেই অনু মিয়ার মৃত্যু হয়। এছাড়াও  অন্তত আরও ৭ জন যাত্রী গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আবু ছালেক (২৮) নামে একজনের অবস্থা আশংকাজনক অবনতি হলে চিকিৎসক তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

দূর্ঘটনায় আহতরা হলেন, উপজেলার সাদ্দাম বাজার গণকিরপাড় গ্রামের সিদ্দিক আলীর ছেলে আহাদ আলী (২৮), একই গ্রামের মৃত আব্দুর রফিকের ছেলে আবু ছালেক, রতন মিয়ার ছেলে মারুফ (১০), শাহ আলম মিয়ার ছেলে তোফাজ্জল মিয়া (১৭), নুর মোহাম্মদ মিয়ার ছেলে রতন (৩০) ও মাইক্রোবাস নোহা গাড়ির চালক বেলাল মিয়া (৩২)।

শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার (ওসি) মোঃ লিয়াকত আলী জানান, চুনারুঘাট থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া একটি মাইক্রোবাস মহাসড়কের মাধববপুর হরিশ্যামা সেমকো-সিএনজি পেট্রোল পাম্প এলাকায় পৌঁছলে রাস্তার পাশে দাড়িয়ে থাকা একটি রোলারের সাথে ধাক্কা লাগে। এতে ঘটনাস্থলেই অনু মিয়া নামে একজনের মৃত্য হয়। দূর্ঘটনায় কবলিত মাইক্রেবাসটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

এ কে কাওসার, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি