বাংলাদেশের বিজয় দিবসে অনুষ্ঠিত হয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর মহড়া

বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগিতায় মিত্রশক্তি হিসেবে এগিয়ে এসেছিল ভারত। ভারতীয় সেনারাও অংশ নিয়েছিল মুক্তিযুদ্ধে। মুক্তিযুদ্ধে জয় লাভের পর গঠিত হয় স্বাধীন বাংলাদেশ। তাই বাংলাদেশের সঙ্গে সেই দিনটিকে স্মরণ করে ভারতীয় সেনাবাহিনীও। প্রতিবাররে মতো এবারের ৪৮তম বিজয় দিবসের প্রাক্কালে রোববার (১৫ ডিসেম্বর) কলকাতার রেসকোর্স ময়দানে অনুষ্ঠিত হয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর মহড়া।

যেখানে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক নৌমন্ত্রী শাহজান খানসহ তার নেতৃত্বে ৩০ জন সস্ত্রীক মুক্তিযোদ্ধা, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ছয় কর্মকর্তা, তাদের স্ত্রী ও ভারতীয় সেনারা। সব মিলিয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীর অভ্যর্থনায় ৭২ জন বাংলাদেশি রেসকোর্সে সেনাবাহিনীর মহড়ায় উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়েও।

নানাভাবে মহড়ায় দর্শকদের মন আকর্ষণ করেন ভারতীয় সেনারা। মহড়ায় ৭০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে ঘোড়া চালিয়ে আগুনের ব্যারিকেড পার হয়েছেন ভারতীয় সেনারা।

এরপর সেনাবাহিনীর মহড়ায় নজর কাড়লো প্যারাট্রুপার কলা। রাশিয়ান বিমানে করে ১০ হাজার ফুট উচ্চতা থেকে ঝাঁপ দেন ২০ জন কমান্ডো। ৫ হাজার ফুট এলে তারা প্যারাস্যুট খুলেন। ২০১৯ সালে ৪৮তম বিজয় দিবসকে স্মরণ করতে ভারতীয় পতাকার সঙ্গে বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে রেসকোর্সের মাটি ছোঁয় ২০ জন প্যারাট্রুপার।

এরপর নজর কাড়ে বাইকের নানা মহড়ায়। বাইক নিয়ে আগুনের মধ্য দিয়ে ঝাঁপ, আবার একটি বাইকেই ১০ জনকে নিয়ে চালালো চালক।

এছাড়া সবচেয়ে বড় চমক ছিল হেলিকপ্টার প্রদর্শনী। ভারতের তৈরি অ্যাডভান্সড লাইট হেলিকপ্টার ‘চিতা’ ও অ্যাডভান্সড অ্যাটাক হেলিকপ্টার ‘রুদ্রাক্ষ’র প্রদর্শনী। মহড়াতে বানানো হলো সন্ত্রাসবাদী ছাউনি। তাতে দেখানো হলো কীভাবে সেনারা হেলিকপ্টার দিয়ে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করে।

২০১৯ সালে বাংলাদেশ উদযাপন করতে যাচ্ছে ৪৮তম বিজয় দিবস। ১৬ ডিসেম্বর (সোমবার) বাংলাদেশে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিনটি উদযাপন করা হবে। এর একদিন আগে, অর্থাৎ রোববার (১৫ ডিসেম্বর) ভারতীয় সেনাবাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় দপ্তর কলকাতার ফোর্ট উইলিয়ামে পালন হলো বিজয় দিবসের উৎসব।

১৬ ডিসেম্বরেও (সোমবার) ভারতজুড়ে সেনারা পালন করবেন বিজয় দিবস। ভারতীয় সেনাবাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় দপ্তর কলকাতার ফোর্ট উইলিয়ামে দিনটিতে স্মরণ করা হবে বাংলাদেশি শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হওয়া ভারতীয় সেনাদের। এতেও অংশগ্রহণ করবেন বাংলাদেশি অতিথিরাও।