রাস উৎসবকে ঘিরে কঠোর নিরাপত্তায় বলয় তৈরি করেছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলের’ প্রভাবে বৈরী আবহাওয়ার কারণে বাগেরহাটের দুবলার চরে হতে যাওয়া সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ঐতিহ্যবাহী উৎসব রাসমেলা বাতিল ঘোষণার পর পুনরায় তা আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। রাস উৎসব এবং রাস পূর্ণিমার পুণ্যস্নান ঘিরে কঠোর নিরাপত্তায় বলয় তৈরি করেছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড।

আগামী ১০ থেকে ১২ নভেম্বর বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের দুবলার চরের আলোরকোলে এ উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার (৮ নভেম্বর) কোস্ট গার্ড সদর দফতরের মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট বিএনএম হায়াত ইবনে সিদ্দিক এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন। রাসমেলায় হিন্দু তীর্থযাত্রী ছাড়াও দেশি-বিদেশি দর্শনার্থীরা পুণ্যস্নান অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘উৎসবের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগে সব ধরনের নৌযানে কোস্ট গার্ড তল্লাশি করবে বলে জানিয়েছে। এই রাসমেলায় তীর্থযাত্রী ও দর্শনার্থীরা আগামী ৯ নভেম্বর থেকে যাত্রা শুরু করবে। ১১ নভেম্বর সন্ধ্যায় দুবলার চরের মূল অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পর ১২ নভেম্বর সকালে পুণ্যস্নানের মাধ্যমে এর সমাপ্তি হবে। মেলা উপলক্ষে সুন্দরবনের বনজসম্পদ ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণসহ পুণ্যস্নানে আসা তীর্থযাত্রী ও দর্শনার্থীদের জান-মালের নিরাপত্তা নিশ্চিত এবং আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে কোস্ট গার্ডের নজরদারি থাকবে।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, ‘রাসমেলায় অংশগ্রহণকারীরা আটটি রুটে গমনাগমন করবে। এসব রুটে কোস্ট গার্ড প্রয়োজনে সব নৌযানে তল্লাশি করবে।এ উপলক্ষে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের দুটি জাহাজ ও বেশ কয়েকটি টহল বোট নিয়োজিত থাকবে এবং পশ্চিম জোনের সব স্টেশন/আউটপোস্টের টহল জোরদার করা হবে। রাসমেলার সুযোগে দুষ্কৃতকারীরা যেন সুন্দরবনের হরিণ ও বাঘ শিকারসহ বন্যপ্রাণীর ক্ষতি করতে না পারে সেজন্য কোস্ট গার্ড বন বিভাগের সঙ্গে সমন্বয় করে যৌথ টহল দেবে। অনুষ্ঠানস্থলে প্রয়োজনীয় সংখ্যক কোস্ট গার্ড সদস্য বিভিন্ন পয়েন্টে মোতায়েন করা হবে। একই সঙ্গে কোস্ট গার্ডের জাহাজ “স্বাধীন বাংলা”র মাধ্যমে ওই এলাকায় একটি ডুবরি ও একটি মেডিক্যাল দল সার্বক্ষণিক টহলে নিয়োজিত থাকবে।’

এছাড়া যেকোনও ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি দ্রুত মোকাবিলায় দুবলার চরে কোস্ট গার্ডের কন্ট্রোল রুমে (ফোন নম্বর: ০১৫৩৯৫৮৫২৭৭ ও ০১৭৬৬৬৯০৩৮৩)  সার্বক্ষণিক জনবল প্রস্তুত থাকবে।