অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিতের পর পানিতে ফেলে দেয়ায় ছাত্রলীগ নেতাকে বহিষ্কার

রাজশাহী সরকারি পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিতের পর পানিতে ফেলে দেয় শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন সৌরভ। এ ঘটনায় সৌরভকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ছাত্রলীগ। একই ঘটনায় সৌরভসহ ছাত্রলীগের ৭ নেতাকর্মীকে ইনস্টিটিউট থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

শনিবার রাতে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ছাত্রলীগের এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

শনিবার রাতে অনুষ্ঠিত ওই জরুরি সভায় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রকি কুমার ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক রাজিব আহমেদসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সপ্তম পর্বের ছাত্র ও ছাত্রলীগ নেতা সৌরভ রাজশাহী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদী হাসান গ্রুপের নেতা। এ ঘটনায় পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শাখা ছাত্রলীগের সকল সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে সুপারিশেরও সিদ্ধান্ত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার দুপুর একটা ৩৫ মিনিটের দিকে অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিনকে ক্যাম্পাসের ভিতরেই পুকুরের মধ্যে ফেলে দেওয়া হয়। ঘটনার পর অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন জানান, সৌরভের তিন বিষয়ে রেফার্ড (অকৃতকার্য) আছে। এরপরেও সে আবারও পরীক্ষা দেওয়ার জন্য সকালে দলবল নিয়ে আমার কাছে এসেছিল। কিন্তু তাকে জানানো হয়, এ বিষয়ে ডিপার্টমেন্টের কো-অর্ডিনেটরের সঙ্গে কথা না বলা পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে না। এতে সৌরভ ক্ষিপ্ত হয়ে চলে যায় এবং আমাকে হুমকি দেয়।