পঞ্চগড় দিয়ে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ-ভারত ফ্রেন্ডশিপ পাইপলাইন

পঞ্চগড় দিয়ে প্রবেশ করতে যাচ্ছে জ্বালানি তেল সরবরাহকারী বাংলাদেশ-ভারত ফ্রেন্ডশিপ পাইপলাইন। চলতি মাসেই এই পাইপলাইন স্থাপনের কাজ শুরু হওয়ার কথা। জ্বালানি তেলের মূল্য কমিয়ে আনার জন্য প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে পাইপলাইন স্থাপন করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

২২ ইঞ্চি ব্যাসের এ পাইপ লাইনটি ভারতের শিলিগুড়ি নুমালীগড় তেল শোধনাগার থেকে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর হয়ে প্রবেশ করবে। পাইপ লাইনটি তেতুলিয়া, সদর বোদা উপজেলা ও ঠাকুরগাঁও এর উপর দিয়ে পার্বতীপুর তেল ডিপোতে তেল সরবরাহ করবে।

ভারতের শিলিগুড়ি থেকে বাংলাদেশের পার্বতীপুর পর্যন্ত পাইপ লাইনটির দৈর্ঘ্য হবে ১৩০ কিলোমিটার। এর মধ্যে ভারত অংশে স্থাপিত হবে পাঁচ কিলোমিটার বাংলাদেশ স্থাপিত হবে বাকি ১৩০ কিলোমিটার পাইপলাইন। এর খরচ ধরা হয়েছে ৫২০ কোটি টাকা। যার মধ্যে ২১৭ কোটি টাকা বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন ও ভারত ৩০৩ কোটি রুপি যৌথভাবে ব্যয় করবে। প্রকল্প বাস্তবায়নের সময় ৩ বছর ধরা হয়েছে।

ইতোমধ্যে জমি অধিগ্রহণের মধ্যে দিয়ে পাইপ লাইনের নির্মাণ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

এ বিষয়ে পঞ্চগড় জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল মান্নান জানান, ‘ইন্দোবাংলা পাইপ লাইন নির্মাণ প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে। এর মধ্যে জমি জরিপের কাজ বেশ কয়েকবার হয়েছে। জমি অধিগ্রহণের কাজ চলছে।’

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভারত-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ পাইপ লাইনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, সদ্য নির্মিত পাইপ লাইন দিয়ে বছরে ১০ লক্ষ মেট্রিক টন তেল সরবরাহ করা যাবে।

নাজমুস সাকিব মুন, পঞ্চগড় প্রতিনিধি