শিক্ষকের অবহেলায় দশম শ্রেনীর মেধাবী শিক্ষার্থীর মৃত্যু, স্কুল ভাংচুর

দিনাজপুরের বিরামপুরে স্কুলের শিক্ষকদের অবহেলার কারনে আজিম মন্ডল নামের দশম শ্রেনীর এক শিক্ষার্থী মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। উত্তেজিত হয়ে স্কুল ভাংচুর ও ৬টি মটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ করেছে বিক্ষুদ্ধ জনতা ও স্কুল শিক্ষার্থীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে পুলিশসহ আগুন নেভায় ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট। দোষী শিক্ষকদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে নিহত শিক্ষার্থী অভিবাবক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী ।

শিক্ষকের অবহেলার কারনেই প্রান হারালো মেধাবী ছাত্র আজিম মন্ডলের। বুধবার দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার কাঠলা ইউনিয়নের কাঠলা উচ্চ বিদ্যালয়ে এই ঘটনা ঘটে। সারা দেশের পরিস্কার পরিচ্ছন্ন অভিযানে সকাল থেকেই শিক্ষার্থীরা স্কুলে নিয়োজিত ছিল। সেই পরিস্কার পরিচ্ছন্ন অভিযানের এক সময় দশম শ্রেনীর ছাত্র আজিম মন্ডল জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। তাকে চিকিৎসার জন্য শিক্ষার্থীরা শিক্ষকদের কাছে মটরসাইকেল দিয়ে সহযোগিতা চাইলে তাদের কথা এরিয়ে শিক্ষকরা কোন সহযোগিতা না করে, তাকে নিয়ে ভ্যানে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ায় নির্দেশ দেন।

শিক্ষার্থীরা ভ্যানে করে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ায়র সময় পথি মধ্যে তার মৃত্যু ঘটে। পরে উত্তেজিত এলাকাবাসী ও স্কুলে শিক্ষার্থীরা ৬টি মটরসাইকেল অগ্নিসংযোগ করে এবং স্কুলে আসবার পত্র ভাংচুর করে। এসময় খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসে কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ নিয়ে এলাকায় বেশ উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এদিকে একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। দোষীদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে নিহতের পরিবার, সহপাঠী ও এলাকাসী।

স্থানিয় জনপ্রতিনিধি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন যদি শিক্ষকরা এমন ব্যবহার ছাত্রের সাথে করে তাহলে তাদের বিচার হওয়া উচিৎ। পাশাপাশি দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার কথা জানালেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

নিহত আজিম মন্ডল (১৬) কাঠলা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর মানবিক বিভাগের ১ রোলের ছাত্র। এবং উপজেলার কাঠলা ইউনিয়নের রেণুপাড়া গ্রামের আছাদুলের ছেলে। ঘটনার পরপর স্কুলের কর্তৃপক্ষ কাউকে পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান এখন পর্যন্ত কেউ থানায় অভিযোগ নিয়ে আসেনি।

ফখরুল হাসান পলাশ, দিনাজপুর প্রতিনিধি