চতুর্থবারের মতো ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া

আবারো ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া। মাত্র দুই সপ্তাহের কম সময়ের মধ্যে আজ মঙ্গলবার চতুর্থবারের মতো পূর্ব উপকূলের দিকে দুটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে পরীক্ষা চালায় দেশটি।

দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী নতুন করে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার এ তথ্য জানিয়েছে। বার্তা সংস্থা বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজ মঙ্গলবার সকালে উত্তর কোরিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় হুয়াংহাই প্রদেশ থেকে এসব ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, তারা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে এবং দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গতকাল সোমবার থেকে কোরীয় উপদ্বীপে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়া যে যৌথ সামরিক মহড়া শুরু করেছে, তাতে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে উত্তর কোরিয়া। যদিও সিউল ও ওয়াশিংটন দাবি করছে, এবারের বার্ষিক যৌথ মহড়া অনেকটা সীমিত আকারে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কিন্তু পিয়ংইয়ং বলছে, এ মহড়ার মাধ্যমে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইনের সঙ্গে অর্জিত সমঝোতা লঙ্ঘন করা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া তাদের যৌথ মহড়াকে বৈধতা দেওয়ার লক্ষ্যে সব ধরনের ছলচাতুরী ব্যবহার করছে। কিন্তু এসব করে এই মহড়ার আগ্রাসী চরিত্র ঢেকে রাখা যাবে না।

গত শুক্রবার পূর্ব সাগর লক্ষ্য করে দুটি স্বল্পপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে উত্তর কোরিয়া। ক্ষেপণাস্ত্র দুটি ২২০ কিলোমিটার দূরে গিয়ে সাগরে পড়লেও এগুলো তুলনামূলক কম উচ্চতা দিয়ে উড়ে যায়। এ ছাড়া এগুলোর গতিও ছিল অনেক বেশি।

এর আগে গত বুধবার উত্তর কোরিয়া আরো দুটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করে। ক্ষেপণাস্ত্র দুটি ৩০ কিলোমিটার পর্যন্ত উচ্চতায় উঠে ২৫০ কিলোমিটার দূরের কল্পিত লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানে। আর গত ২৫ জুলাই প্রথমবার উত্তর কোরিয়া যে দুটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায়, সেগুলোর একটি গিয়ে পড়ে প্রায় ৬৯০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে জাপান সাগরে।