নিজেকে সবচেয়ে কম বর্ণবাদী মানুষ বলে ট্রাম্পের দাবি

অনেক দিন যাবত মার্কিন রাজনীতিবিদ ও দেশটির মানবাধিকার কর্মীদের ওপর বর্ণবাদী আক্রমণের অভিযোগ উঠছে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। যা নিয়ে এরই মধ্যে বিভিন্ন স্থানে তীব্র সমালোচনার মধ্যেও পড়তে হয়েছে তাকে। যদিও এবার নিজেকে বিশ্বের সবচেয়ে কম বর্ণবাদী মানুষ বলে দাবি করেছেন মার্কিন এ প্রেসিডেন্ট।

মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) হোয়াইট হাউস প্রাঙ্গণ থেকে নিজের বিশেষ হেলিকপ্টারে ওঠার আগে উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছে ডোনাল্ড ট্রাম্প এ দাবি করেন বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম ‘দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট’।

এর আগে গত সপ্তাহে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের চার নারী সদস্যের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বর্ণবাদী ও বিদ্বেষমূলক আক্রমণ করেছেন বলে অভিযোগ তুলেছে দেশটির ডেমোক্র্যাট শিবির। যদিও সেই অভিংযোগের রেশ না কাটতেই গত কয়েকদিন আগে মার্কিন মানবাধিকার কর্মী আল শার্পটনের বিরুদ্ধেও বর্ণবাদী মন্তব্য করার অভিযোগ ওঠে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে।

গণমাধ্যমটির দাবি, মঙ্গলবার হোয়াইট হাউস থেকে সরাসরি ভার্জিনিয়ার জেমনটাউনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য রওনা দেওয়ার সময় তিনি নিজেকে বিশ্বের সবচেয়ে কম বর্ণবাদী মানুষ বলে দাবি করেছেন। রাজ্যটির প্রতিনিধি পরিষদের চারশতম বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দিতে স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পকে নিয়ে যাচ্ছিলেন মার্কিন এ প্রেসিডেন্ট।

এ দিকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের এসব বর্ণবাদী কর্মকাণ্ডের অভিযোগে জেমনটাউনের সেই অনুষ্ঠানটি এরই মধ্যে বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন রাজ্যের বেশ কয়েকজন আইনপ্রণেতা। যাত্রা শুরুর পূর্বে তাদের উদ্দেশে ট্রাম্প বলেন, ‘আমি জানি যে সেসব আইনপ্রণেতারা নিজেদের মানুষের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। আমার বিশ্বাস, আমাদের এসব কর্মকাণ্ডে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত সকল আফ্রিকান-আমেরিকানরা অনেক খুশি হচ্ছেন।’

অপর দিকে একই দিন প্রকাশিত এক জনমত জরিপে দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৫১ শতাংশ নাগরিক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে একজন বর্ণবাদী ব্যক্তি বলে দাবি করে। যদিও দেশটির ৪৫ শতাংশ মানুষ বিষয়টি মানতে নারাজ।

‘দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টে’ প্রকাশিত সেই জনমত জরিপে দেখা যায়, চলমান এই ইস্যুতে মার্কিন ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান শিবিরেও বর্তমানে ব্যবধান বেশ জোরালো হয়ে দাঁড়িয়েছে। যেখানে প্রায় ৮৬ শতাংশ ডেমোক্র্যাট ট্রাম্পকে একজন বর্ণবাদী বলে মনে করে। অপর দিকে মাত্র আট শতাংশ রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মতাদর্শে বিশ্বাসী।