ফরিদপুর ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত ৩০, হাসপাতালে ভর্তি

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে গত নয় দিনে ৩০জন রোগী ভর্তি হয়। এদের মধ্যে একজন রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ীতে ফিরে গেছেন। বর্তমানে হাসপাতালটিতে ২৯ জন রোগী ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে ভর্তি রয়েছে বলে জানা গেছে। তাদেরকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে চিকিৎসা করা হচ্ছে বলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন। তবে রোগীদের বেশীর ভাগের বাড়ী ঢাকাসহ পার্শ্ববর্তী জেলা শহরে।

এদিকে ঢাকা থেকে জ্বর নিয়ে নিজ বাড়ি ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে ফিরে মৃত্যু হয়েছে সেলিম বিশ্বাস নামে এক গ্যারেজ মিস্ত্রীর। তার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, জ্বরে আক্রান্ত হয়ে রবিবার বাড়িতে এসেছিলেন তিনি। ওইদিন বিকেলে স্থানীয় চরভদ্রাসন আধুনিক ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে রক্ত পরীক্ষা করা হয়। সেখানে রক্তে তার ডেঙ্গু জ্বরের উপস্থিতি পাওয়া গেলে তারা তাকে উন্নত চিকিৎসার পরামর্শ দেন। রাতেই তাকে (সেলিমকে) ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয় এবং সোমবার সকালে সেখানে তার মৃত্যু হয় বলে জানান পরিবারের সদস্যরা। তবে ফমেকে এমন কোন রোগী মৃত্যু হয়নি বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কৃর্তপক্ষ।

এ ব্যাপারে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ কামদা প্রসাদ সাহা সাংবাদিকদের জানান, গত ২০ জুলাই থেকে হাসপাতালে ৩০ জন রোগী ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে ভর্তি হয়। এদের মধ্যে একজন রোগী সুস্থ্য হয়ে বাড়ীতে ফিরে গেছেন। তাদের প্রত্যেকের জন্য একটি করে মশারীর ব্যবস্থাসহ রোগীদের অধিক গুরুত্ব দিয়ে চিকিৎসা করা হচ্ছে। তবে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে(ফমেক) ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে কোন রোগীর মৃত্যু হয়নি বলে তিনি দাবি করেন।

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি