প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান মুসলিম ছাত্রীকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছে হিন্দু ছাত্র

প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে এক মুসলিম কলেজছাত্রীকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছেন কলেজ পড়–য়া হিন্দু ছাত্র সজল কুমার দেব। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে এই ঘটনা ঘটে। আহত ছাত্রীকে কোটচাঁদপুর উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয় রবিবার। এ নিয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন তার বাবা।

পরে এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত সজল কুমার দেবকে গ্রেপ্তার করে আজ সোমবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে। আহত ছাত্রী কোটচাঁদপুর পৌর শহরের তেতুল তলা পাড়ায় বাসিন্দা। অভিযুক্ত সজল কুমার দেব উপজেলার বাগডাঙ্গা গ্রামের রতন দেবের ছেলে।

আহত ছাত্রী বলেন, ‘এ বছর কোটচাঁদপুর মহিলা পৌর কলেজ থেকে আমি এইচএসসি পাশ করেছি। এক বছর আগে প্রাইভেট পড়ার সুবাদে আমার সঙ্গে একই ইয়ারের কোটচাঁদপুর সরকারি ডিগ্রি কলেজের ছাত্র সজল কুমার দেব’র পরিচয় হয়। পরিচয়ের কিছু দিন পর থেকে সে আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল।’

তিনি জানান, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি এক চাচাতো বোনের জন্য পৌরসভায় জন্মসনদ আনতে যান। এ সময় তার চাচাতো বোনও সঙ্গে ছিলেন। ফেরার পথে বাজার পাড়ার একটি গলিতে সজল কুমার দেব তাদেরকে একা পেয়ে ওই ছাত্রীকে আবারো প্রেমের প্রস্তাব দেন।

এ সময় মেয়েটি সজলকে বলেন, ‘তুমি ভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষ তাই আমার পরিবার এটা মেনে নেবে না।’

এরপর সজল তাকে মোটরসাইকেলে উঠতে বলেন। তিনি জানান, মোটরসাইকেলে উঠতে না চাইলে সজল মারপিঠ করেন এবং ইট দিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে জখম করে চলে যান। খবর পেয়ে মেয়েটির পিতা-মাতা এসে তাকে বাড়ি নিয়ে গ্রাম্য ডাক্তার দিয়ে চিকিৎসা করান।

আহত মেয়েটির বাবা জানান, এ ধরনের ঘটনা প্রচার হলে মেয়ের বিয়ে দিতে সমস্যা হতে পারে। তাই তিনি বাড়িতেই মেয়েকে চিকিৎসা করছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে মেয়ের অবস্থা আশংকাজনক পর্যায়ে চলে যায়। অন্যদিকে সজল কুমার দেব পরিবাররের মারাত্মক ক্ষতি করবে বলে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিতে থাকেন।

যে কারণে মেয়েকে বাঁচাতে ও নিরাপত্তার জন্য গত রবিবার (২৮ জুলাই) সকালে মেয়েকে কোটচাঁদপুর উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেই সঙ্গে ওই দিন রাতেই সজল কুমার দেবর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

কোটচাঁদপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইমরান আলম বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর রাতেই আসামি সজল কুমার দেবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সজলের বিরুদ্ধে নারী শিশু নির্যাতনসহ বেশ কয়েক ধারায় মামলা রেকর্ড করা হয়েছে এবং গতকাল সোমবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি