পঞ্চগড়ে মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তিকে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে ছেলে ধরা সন্দেহে একজনকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করার খবর পাওয়া গেছে। তবে প্রাথমিকভাবে আটক যুবককে মানসিক ভাবে ভারসাম্যহীন বলে জানিয়েছেন পুলিশের একটি সূত্র।

আটক যুবক নিজেকে সাজেদুর রহমান প্রামানিক হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। তিনি নাটোর জেলার গুরুদাসপুর উপজেলার সাহাপুর এলাকার মন্টু প্রামাণিকের ছেলে বলে গুরদাসপুর থানার বরাত দিয়ে নিশ্চিত করেছেন দেবিগঞ্জ থানা পুলিশ।

আজ বিকালে উপজেলা সদরের এলএসডি রোড সংলগ্ন এলাকায় স্থানীয়রা তাকে সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। সে সময় আটক যুবকের কথায় অসংলগ্নতা পাওয়ায় স্থানীয়রা তাকে মারধর শুরু করেন। পরে দেবীগঞ্জ থানায় খবর দিলে পুলিশ সাজেদুর কে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

দেবিগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) শাহ আলম জানান, অজ্ঞাত যুবককে মারধর করার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ফোর্স পাঠিয়ে সাজেদুর কে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। ইতোমধ্যে তার পরিচয় সম্পর্কে নাটোরের গুরুদাসপুর থানার মাধ্যমে আমরা প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হয়েছি। ছেলেটির অভিভাবকদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। আশা করছি আগামী কাল ছেলেটির মা দেবীগঞ্জে আসবেন। প্রয়োজনীয় আইনি প্রক্রিয়া শেষে আমরা ছেলেটিকে তার মায়ের নিকট হস্তান্তর করব। ছেলেটি মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন বলে প্রাথমিকভাবে আমরা নিশ্চিত হয়েছি যোগ করেন মি. শাহা আলম।

নাজমুস সাকিব মুন, পঞ্চগড় প্রতিনিধি