নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তুরাগ নদে ট্যাক্সি, ১১ ঘণ্টা পরও মিলেনি সন্ধান

ঢাকার সাভারের আমিনবাজার এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তুরাগ নদে পড়ে যাওয়ার ১১ ঘণ্টা পরও সন্ধান পাওয়া যায়নি যাত্রীবাহী ট্যাক্সি ক্যাবটির। এর খোঁজে ঘটনাস্থলে ডুবুরি দল কাজ করছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। ট্যাক্সিচালক বা যাত্রীদের ভাগ্যে কি ঘটেছে- তাও জানাতে পারেননি উদ্ধারকারীরা।

রবিবার রাত আনুমানিক ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে হলুদ রঙের একটি ট্যাক্সি ক্যাব সাভার থেকে ঢাকায় দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে আমিনবাজারের সালেহপুর সেতুতে ওঠার আগে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্যাক্সি ক্যাবটি তুরাগ নদে পড়ে যায়। খবর পেয়ে থানা-পুলিশ, নৌপুলিশ, ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল উদ্ধার অভিযান শুরু করে।

ফায়ার সার্ভিসের কমান্ডার আনোয়ারুল হক বলেন, ঘটনাস্থলে ডুবুরিদল উপস্থিত রয়েছে। এখন পর্যন্ত ট্যাক্সি ক্যাবের সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় কাউকে উদ্ধারও করা যায়নি।

সাভার জোনের দায়িত্বপ্রাপ্ত ট্রাফিক পরিদর্শক আবুল হোসেন বলেন, সেতুর আগে নিরাপত্তামূলক ছোট খুঁটি বেঁকে গেছে। এতে ট্যাক্সি ক্যাবটি নদে পড়ে ডুবে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এতে কতজন যাত্রী ছিলেন, তা জানা যায়নি।

ট্রাফিক পুলিশের আমিনবাজার বক্সের ইনচার্জ কামরুল ইসলাম বলেন, ‌‘প্রাথমিকভাবে সড়কে লাগানো সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে আমরা নিশ্চিত হয়েছি যে একটি ট্যাক্সি ক্যাব নদে পড়ে নিমজ্জিত হয়েছে।’

এর আগে ২০১০ সালের ১১ অক্টোবর ওই সেতু থেকে তুরাগ নদে ‘বৈশাখী পরিবহন’ নামের একটি যাত্রীবাহী বাস নিমজ্জিত হয়। ওই সময় ১৫ যাত্রী নিহত হন।