গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে দেশব্যাপী অর্ধদিবস হরতাল পালন

গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে দেশব্যাপী অর্ধদিবস হরতাল পালন করছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। এর মধ্যেই রাজধানীর পল্টনে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। একই সঙ্গে শাহবাগ মোড়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের অবস্থানের খবর পাওয়া গেছে। আজ রোববার সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া এই হরতাল চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত।

জানা গেছে, শাহবাগ এলাকায় বামপন্থী বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা চার রাস্তার মোড় আটকে পথসভা করছেন। এর ফলে এই এলাকায় যানবাহন চলাচল বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

এদিকে মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বর এলাকায় বামপন্থী বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা মিছিল করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। এ ছাড়া সকালে পল্টন এলাকায় মিছিল করেছেন হরতালের সমর্থনকারীরা।

গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে এই হরতালে ইতিমধ্যে নৈতিক সমর্থন জানিয়েছে বিএনপি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি। আর পুরোপুরি সমর্থন দিয়েছে গণফোরাম, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, নাগরিক ঐক্য, বাংলাদেশ ন্যাপ, গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য এবং ক্ষেতমজুর সমিতি।

এর আগে হরতাল সফল করতে গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল পর্যন্ত পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। পদযাত্রায় বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতৃবৃন্দ গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে আহূত হরতাল কর্মসূচি পালনের জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‌‘গণশুনানিতে আমাদের বক্তব্য অগ্রাহ্য করে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) অযৌক্তিভাবে গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে। এমন সিদ্ধান্তে জীবনযাত্রার ব্যয় বাড়বে। সিএনজির দাম বাড়ায় পরিবহন ব্যয় বাড়বে। শিল্প-কারখানায় ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করায় শিল্পপণ্যের দামও বাড়বে। বিদ্যুৎকেন্দ্রে সরবরাহ করা গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করায় বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি পাবে। এভাবে ব্যয় বৃদ্ধির ফাঁদে জনগণ নিপতিত হবে।’

তারা আরও বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে এলএনজির দাম কমায় ভারতে সিলিন্ডার গ্যাসের দাম কমানো হয়েছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ সরকার এলএনজি, এলপিজি গ্যাস ব্যবসায়ীদের পকেট ভারী করার জন্য সিলিন্ডার গ্যাসের দাম কৃত্রিমভাবে বাড়িয়ে রেখেছে। অবিলম্বে সিলিন্ডার গ্যাসের দাম বর্তমান বাজার দামের অর্ধেকে কমিয়ে আনার আহ্বান জানাই।

সমাবেশে বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক মোশাররফ হোসেন নান্নু, সিপিবির সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রাজেকুজ্জামান রতন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বাম গণতান্ত্রিক জোটের ডাকা হরতালে সমর্থন দিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি), কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, গণফোরাম, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (বাংলাদেশ ন্যাপ) ও ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এনডিপি)। তারা পৃথক পৃথক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ হরতালে সমর্থনের কথা জানান।