‘দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রকারীদের মোকাবেলা করেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে’

যারা দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করে তারা ক্ষমতায় থাকলে দেশ উন্নত হয় তা আজ প্রমাণিত। যারা স্বাধীনতা চায়নি তারা এখনও দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র করছে। আর তা মোকাবেলা করেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।বেইজিংস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের আয়োজনে চীন প্রবাসী বাংলাদেশিদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা দেশের স্বাধীনতা চায়নি তারা উন্নতিও চায় না। একটি বিশেষ মহল এখনো ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু তার পরেও দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, গত ৭০ বছরে চীন নিজেকে বিশ্বের দ্বিতীয় অর্থনৈতিক শক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। চীনের কাছ থেকে অনেক কিছুই শেখার আছে। বাংলাদেশের শিক্ষার্থী যারা চীনে লেখাপড়া করছে তাদেরকে আমি বলবো এই দেশটির কাছ থেকে তারা অনেক কিছুই শিখতে পারে, কি করে চীনের জনগণ দিনরাত এত পরিশ্রম করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে স্বপ্ন নিয়ে জাতির পিতা দেশ স্বাধীন করেছেন সেই স্বপ্ন পূরণ করাই আমাদের লক্ষ্য। উন্নয়নের পথে অনেক বাধা আছে তা অতিক্রম করেই এগিয়ে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, যারা দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করে তারা ক্ষমতায় থাকলে দেশ উন্নত হয়। আর যারা পাকিপ্রেমে বিভোর থাকে ক্ষমতা গেলে তারা রসাতলে যায় তা প্রমাণিত।

শেখ হাসিনা বলেন, উন্নয়নের পথে অনেক বাধা আছে। তা অতিক্রম করেই এগিয়ে যাচ্ছি। যে স্বপ্ন নিয়ে জাতির পিতা দেশ স্বাধীন করেছেন সেই স্বপ্ন পূরণ করাই আমাদের লক্ষ্য।

তিনি আরও বলেন, যারা দেশের স্বাধীনতা চায় না তারাই একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। যারা দেশের স্বাধীনতা চায়নি তারা দেশকে পঙ্গু করে রেখেছে। তারা দেশের কোনো উন্নয়ন দেখতে পায় না। গণতান্ত্রিক পরিবেশ তাদের পছন্দ নয়। তারা অগণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন দেখে।

প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, চীন ও ভারতের মতো সব দেশের দেশের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রেখেই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশ ও সরকার স্থিতিশীল আছে বলেই দেশে বিনিয়োগের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।