স্ত্রীর সামনে প্রকাশ্যে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যার পদক্ষেপ জানতে চায় আদালত

বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে স্ত্রীর উপস্থিতিতেই স্বামী রিফাত শরীফকে (২৫) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা জানতে চেয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) দুপুর ২টার মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষের এক আইন কর্মকর্তাকে এ নির্দেশ দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর আদলতের নজরে আনা হলে বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশারের প্রতি এই আদেশ দিয়েছেন। গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর আদালতের নজরে আনেন ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দস কাজল।

এ সময় আদলত বলেছেন, প্রকাশ্য দিবালোকে এ ধরনের জঘন্য অপরাধ হলো। অসংখ্য মানুষ ছিল। অনেকেই সেটার ভিডিও করেছে কিন্তু তার স্ত্রী ছাড়া কেউ বাঁচাতে এগিয়ে আসেনি।

আদালত আরও বলেন, বাংলাদেশের অবস্থা এমন ছিল না। এটা জনগণের ব্যর্থতা।

এর আগে গতকাল বুধবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে শত শত লোকের উপস্থিতিতে স্ত্রীর সামনে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। ওইদিন সকাল ১০টার দিকে নয়নের নেতৃত্বে চার থেকে পাঁচজন সন্ত্রাসী রিফাতকে দা দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় ফেলে যায়। এ সময় বারবার সন্ত্রাসীদের হাত থেকে স্বামীকে বাঁচাতে চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি।

এক পর্যায়ে গুরুতর অবস্থায় রিফাতকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪টার দিকে রিফাত মারা যান। বর্তমানে রিফাতের মরদেহ বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে।

এ ঘটনায় বুধবার রাতেই নিহত রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেন।