দুই নারীর বিরুদ্ধে বসতঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ

বরগুনার পাথরঘাটায় একটি বসতঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলে প্রতিবেশি ফতেমা বেগম ও পুতুল বেগম নামের দুই নারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার (২৪ মে) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার কাকচিড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ বাইনচটকি গ্রামে শহিদুল আকন বাড়িতে ঘটনাটি ঘটেছে।

এর আগে দীর্ঘদিন ধরে শহিদুল আকন ও তার পরিবারকে ওই বাড়িঘর থেকে উৎখাতের পায়তারা করে আসছেন পার্শ্ববর্তী এ প্রতিবেশীরা।

শহিদুল আকনের স্ত্রী হেপী বেগম বলেন, প্রতিবেশী ফতেমা বেগম ও পুতুল বেগমের পার্শ্ববর্তী জমির চাপাচাপি। তারা আমাদের ভিটা বাড়ি থেকে দীর্ঘদিন ধরে উৎখাতের পায়তারা চালাচ্ছেন।

আমাদের পরিবারের একমাত্র আয় রোজগারের ব্যক্তি শহিদুল আকন পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় পায়রা বন্দরে কাজ করেন। এতে প্রায়ই আমার ৫ কন্যা ও শাশুড়িসহ আমরা ৭ নারী ঘরে থাকতে হয়। এ সুযোগে প্রতিনিয়িত ওই প্রতিবেশিরা ভয়ভীতি দেখান। ঘরে কোন পুরুষ ছেলেরা না থাকায় আমরা এর কোন প্রতিবাদও করতে পারি না। স্থানীয় ইউপি সদস্য হিরু গোলদারও অসহায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে কাকচিড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ বাইনচটকি গ্রামের শহিদুল আকনের কাঠের দোতালা ঘর পুড়ে গেছে। ঘরটি যে যাবে পুড়ে গেছে তাতে ধারনা করা হচ্ছে কোন রাসনিক দ্রব্য দিয়ে ঘরে আগুন দিয়েছে দুবৃর্ত্তরা। এতে ওই ঘরে থাকা ২ লাখ ২০ হাজার ও ১০ ভরি স্বর্ণালংকারসহ ঘরের সকল আসবাবপত্র আগুনে গেছে।

অভিযোগ প্রসঙ্গে প্রতিবেশি ফতেমা বেগম বলেন, এ ঘটনায় আমরা জড়িত নয়, কারা আগুন দিয়েছে তা আমরা জানি না।

এ ব্যাপারে পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হানিফ সিকদার বলেন, পুড়ে যাওয়া ঘরের নারীরা থানায় আসছিল, তারা মামলা দিলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।