শিক্ষককে মারধর করায় সেই ছাত্রলীগের সভাপতি গ্রেফতার

পাবনায় শিক্ষক মাসুদুর রহমানকে মারধরের ঘটনায় সরকারী শহীদ বুলবুল কলেজের সভাপতি সামসুদ্দীন জুন্নুনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (১৮ মে) সকালে পাবনা শহর থেকে তাকে আটক করা হয়। এই বিষয় পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস গণমাধ্যমের কাছে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জুন্নুনকে শহর থেকে তাকে আটক করে পুলিশ। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আটক সামসুদ্দীন জুন্নুন পাবনা পৌর এলাকার শালগাড়ীয়া মহল্লার মোহাম্মদ আলীর ছেলে ও পাবনা সরকারী শহীদ বুলবুল কলেজের সভাপতি।

এর আগে শিক্ষককে মারধরের ঘটনায় বৃহস্পতিবার (১৬ মে) ভোরে নিজ নিজ বাড়ি থেকে অভিযান চালিয়ে দুই শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করেছে সদর থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র সজল ইসলাম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র সাফিন।

গত বুধবার রাতে ওই কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল কুদ্দুস বাদী হয়ে সজল ইসলাম ও সাফিনসহ অজ্ঞাতনামা তিন থেকে চারজনকে আসামি করে মামলা করেন।

প্রসঙ্গত, গত ৬ মে সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজের ১০৬ নম্বর কক্ষে এইচএসসি উচ্চতর গণিত পরীক্ষা চলাকালে সরকারি মহিলা কলেজের দু’জন পরীক্ষার্থী খাতা দেখাদেখি করছিলেন। এসময় ওই কক্ষের পরিদর্শক সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজের প্রভাষক মাকসুদুর রহমান তাদেরকে নিবৃত্ত করতে না পেরে একপর্যায়ে খাতা কেড়ে নেন।

এ ঘটনার জের ধরে গত ১২ মে দুপুরে শিক্ষক মাকসুদুর রহমান কলেজ থেকে মোটরসাইকেল যোগে বেরিয়ে যাওয়ার সময় একদল ছেলে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলাকারীরা তাকে কিল ঘুষি লাথিসহ বেদম মারপিট করে। মারধরের ভিডিওটি সিসি টিভির মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। পরে এটি ভাইরাল হয়।