ভর্তির ক্ষেত্রে ফেইক আবেদন করলে প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট বন্ধ

ঢাকা শিক্ষাবোর্ড জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন ভর্তি প্রক্রিয়ায় শিক্ষার্থীদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফেইক আবেদন করলে তাৎক্ষণিক সেই প্রতিষ্ঠানের ভর্তি প্রক্রিয়ার ওয়েবসাইট বন্ধ করাসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক মো. হারুন-অর-রশিদ স্বাক্ষরিত জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোকে এ হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে।

‘ভর্তির ক্ষেত্রে ফেইক আবেদনের বিজ্ঞপ্তি’তে বলা হয়েছে, ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইনে ভর্তি প্রক্রিয়ায় কতিপয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিধিবহির্ভূতভাবে আবেদন করা হচ্ছে মর্মে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে; যা অনভিপ্রেত ও ভর্তি নীতিমালার পরিপন্থী।

‘কোনো প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ প্রমাণিত হলে তৎক্ষণাৎ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ভর্তি প্রক্রিয়ার ওয়েবসাইট বন্ধ করাসহ বিধি মোতাবেক অন্যান্য শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

গত ১২ মে অনলাইনে ও এসএমএসের মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম শুর হয়েছে।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সহযোগিতায় এই কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। অনলাইনের (www.xiclassadmission.gov.bd) পাশাপাশি টেলিটক মোবাইল থেকে এসএমএস করে ভর্তির আবেদন করা যাবে।

ভর্তি নীতিমালা অনুযায়ী, ১২ মে থেকে অনলাইন ও এসএমএসে আবেদন নেওয়া শুরু হয়ে ভর্তি কার্যক্রম চলবে চলবে ২৩ মে পর্যন্ত। আর জুন মাসের মধ্যে ভর্তির কাজ শেষ করে আগামী ১ জুলাই থেকে ক্লাস শুরু করা হবে।