পরকীয়া প্রেম, পালানোর সময় প্রেমিকসহ দুই বোনকে গাছে বেঁধে নির্যাতন!

পরকীয়া প্রেমে মত্ত হয়ে বিবাহিত নারীর সঙ্গে পালিয়ে যাওয়ার অপরাধে এবার গাছে বেঁধে মারধর করা হলো এক যুবককে। এই কাজে সাহায্যকারী যুবকের দুই ফুফাতো বোনকেও একইভাবে নির্যাতন করেছেন ওই নারীর স্বামী ও স্থানীয়রা। সম্প্রতি চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের ধার জেলার অর্জুন কলোনিতে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, গত মঙ্গলবার মুকেশের সঙ্গে পালিয়ে যায় অভিযুক্তের স্ত্রী। তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে দাবি করে ওই নারীর শ্বশুরবাড়ির লোকজন। পরে তাদের খোঁজে স্থানীয় থানায় নিখোঁজের অভিযোগও জানায় তার স্বামী। এরপরই ফোনে যোগাযোগ করে স্ত্রীকে ফিরে আসতে অনুরোধ করে অভিযুক্ত।

স্বামীর অনুরোধে ওই নারী মুকেশকে নিয়ে ফিরে আসেন। এর পরই যুবক ও তার দুই বোনের ওপর হামলা চালায় তার স্বামী। এ সময় মারধর করা হয় ওই যুবককে। পালাতে সাহায্য করার অপরাধে বেধরক মারধর করা হয় তার দুই বোনকেও।

এরপর গাছে বেঁধে চলে তাদের ওপর নির্মম অত্যাচার। শিশু-কিশোরসহ শতাধিক মানুষের উপস্থিতিতে এ নির্যাতন করা হয়। উপস্থিত জনতার মধ্যে কেউ কেউ পুরো ঘটনাটি মুঠোফোনে ধারণ করছিলেন। তারই মধ্যে এক ব্যক্তি সেই ভিডিও প্রকাশ করে সোশ্যাল মিডিয়ায়। চোখের নিমেষে ভাইরাল হয় ভিডিওটি।

এতে দেখা যায়, কীভাবে অত্যাচার করা হয় তিনজনের ওপর। নির্মমভাবে মারধর করা হচ্ছে এক কিশোরী ও এক যুবতীকে। আর পুরুষদের সঙ্গে সেই কাজে হাত লাগিয়েছেন নারীরাও।

এই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর পরই নড়েচড়ে বসেছে স্থানীয় পুলিশ।

স্থানীয় নিরাপত্তা কর্মী সঞ্জয় মুয়েল জানিয়েছেন, ভিডিও দেখে ইতিমধ্যেই ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে পাঁচজনকে। বাকিদের গ্রেফতারের জন্য জোর তল্লাশি চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here