ইলিশ মাছের গবেষণা কার্যক্রমের জন্য জাহাজ নির্মাণ করবে খুলনা শিপইয়ার্ড

মৎস্য প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরুর উপস্থিতিতে আজ ইলিশ মাছের গবেষণা কার্যক্রমের জন্য একটি গবেষণা ও জরিপ জাহাজ নির্মাণের লক্ষে খুলনা শিপইয়ার্ডের সাথে মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের (BFRI) একটি সমঝোতাস্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।

প্রায় পৌনে আট কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিতব্য গবেষণা জাহাজটি খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড এক বছরের মধ্যে মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের নিকট হস্তান্তর করবে। চাঁদপুর নদীকেন্দ্রের ইলিশ গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্পের অর্থায়নে জাহাজটি নির্মিত হচ্ছে।

সমঝোতা স্মারকে মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধীন চাঁদপুর নদীকেন্দ্রের ইলিশ গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্পের পিডি আবুল বাশার ও খুলনা শিপইয়ার্ডের এমডি আনিসুর রহমান মোল্লা স্বাক্ষর করেন।

এ সময় মন্ত্রণালয়ের সচিব রইছউল আলম মণ্ডল, মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান দিলদার আহমেদ, মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের ডিজি ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, মৎস্য অধিদফতরের ডিজি আবু সাইদ মোঃ রাশেদুল হকসহ মন্ত্রণালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

গবেষণা জাহাজটিতে ফিশ ফাইন্ডার, ইকো সাউন্ডার, নেভিগেশন এবং অত্যাধুনিক টেলিযোগাযোগব্যবস্থা, অগ্নিনির্বাপক, ইলিশ গবেষণার ল্যাবরেটরি, নেটিং সিস্টেম, পোর্টেবল হ্যাচারিসহ অন্যান্য আধুনিক প্রযুক্তির সংযোজন থাকবে।

জাহাজটি নির্মিত হলে দেশের সংশকিষ্ট নদী এবং সাগরের মোহনায় ইলিশের প্রজনন এবং বিচরণক্ষেত্রের পরিবর্তন পর্ববেক্ষণ, নতুনক্ষেত্র চিহ্নিতকরণ, সর্বোচ্চ সহনশীল উৎপাদন, ইলিশ-জনতার গতিবিদ্যা, ইলিশের জীবনচক্র, উৎপাদনশীলতার ওপর পরিবেশের প্রভাব এবং জল্বায়ুগত প্রভাবনির্নয়, ইলিশের প্রজনন-সাফল্য, ডিমের উৎপাদন, জাটকা ও ইলিশের প্রাচুর্যতার ওপর ব্যবস্থাপনাকৌশলাদি বাস্তবায়নের প্রভাব নিরূপণ করা সম্ভব হবে।