ভাল্লুকের আক্রমণে জখম কিশোরকে হেলিকপ্টারে সিএমএইচে নিয়ে প্রাণ বাঁচালো সেনাবাহিনী

ভাল্লুকের আক্রমণে রাঙ্গামাটি জেলার সাজেক ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড় এলাকায় জখম হওয়া পণবিকাশ ত্রিপুরা (১৬) নামে এক কিশোরকে বাঁচানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সেনাবাহিনী। সে রাঙ্গামাটির সাজেক ইউনিয়নের নিওথাংনাং পাড়ার অলীন্দ বিকাশ ত্রিপুরার ছেলে।

ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর এই কিশোরকে রোববার (১২ মে) দুপুর সোয়া ২টার দিকে দুর্গম ওই অঞ্চল থেকে হেলিকপ্টারে এনে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই কিশোরের চিকিৎসায় গঠিত হয়েছে মেডিকেল বোর্ডও।

পণবিকাশের সঙ্গে হেলিকপ্টারে আসা তার চাচাতো ভাই হরেন বিকাশ ত্রিপুরা জানান, গত শুক্রবার (১০ মে) তাদের বাড়ি থেকে প্রায় দুইঘণ্টার হাঁটা পথের সমান দূরত্বে জঙ্গলে বাবার সঙ্গে জুমচাষ করতে গিয়ে ফেরার পথে হিংস্র ভাল্লুকের আক্রমণের শিকার হয় পণবিকাশ। ভাল্লুকের থাবায় পণবিকাশের বেশ কয়েকটি দাঁত পড়ে গেছে। এছাড়া ভাল্লুকের আঁচড়ে পণবিকাশের মুখমণ্ডলসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ মারাত্মক জখম হয়েছে।

স্থানীয়ভাবে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব না হওয়ায় পণবিকাশের শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। রোববার পণবিকাশকে স্থানীয় ৫৪ ব্যাটেলিয়ন বিজিবি’ ক্যাম্পে নেওয়া হলে সেখান থেকে সেনাবাহিনীকে খবর দেওয়া হয়।

চট্টগ্রাম সেনানিবাসের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের কমান্ড্যান্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মোর্শেদ রশিদ বলেন, প্রাথমিকভাবে দেখে ওই কিশোরের শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ মনে হয়েছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।