মিয়ানমারে বিধ্বস্ত বিমান, উড়োজাহাজ সংকটে বাতিল বিমানের ১০ ফ্লাইট

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কার্যক্রম অল্প কয়েকটি কার্যক্ষম উড়োজাহাজ দিয়েই পরিচালিত হয়। এ অবস্থায় মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ড্যাশ-৮কিউ৪০০ মডেলের একটি প্লেন বিধ্বস্ত হওয়ায় উড়োজাহাজ সংকট প্রকট হয়ে উঠেছে। এতে অন্তত ১০টি ফ্লাইট বাতিল করতে হয়েছে বিমান কর্তৃপক্ষকে।

বুধবার উড়োজাহাজ সংকটে তিনটি ফ্লাইট বাতিল করে বিমান। আজ শুক্রবার ও আগামীকাল শনিবার মিলে আরো ৭টি ফ্লাইট বাতিল করা হলো। এ নিয়ে মোট ১০টি ফ্লাইট বাতিল করেছে বাংলাদেশ বিমান।

মিয়ানমারে বিধ্বস্ত ড্যাশ৮কিউ৪০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে ঢাকা থেকে সৈয়দপুর, রাজশাহী, বরিশাল, যশোর এবং সিলেট, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার রুটে বোয়িং ৭৮৭, ৭৭৭ ও ৭৩৭ উড়োজাহাজ ব্যবহার করা হয়।

বিমানের বহরে ১৩টি উড়োজাহাজ রয়েছে। এরমধ্যে দু’টি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার, চারটি বোয়িং ৭৭৭-৩০০, চারটি ৭৩৭-৮০০ ও তিনটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ। তবে বহরে থাকা একটি বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজ মেরামতের জন্য গ্রাউন্ডেড রয়েছে। এছাড়া মিয়ানমারে সংঘটিত দুর্ঘটনায় বিকল হলো একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ।

চলতি সপ্তাহে কাতারের আলাফকো এভিয়েশন লিজ অ্যান্ড ফাইন্যান্স কোম্পানির কাছ থেকে ছয় বছরের জন্য লিজ নেওয়া দু’টি বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজ যুক্ত হওয়ার কথা, এ দু’টি উড়োজাহাজ যুক্ত হলে সংকট কাটিয়ে উঠতে পারে বলে জানিয়েছে বিমান কর্তৃপক্ষ।