মাদক সেবন করে হল ভাঙচুর করায় নেপালি শিক্ষার্থী বহিষ্কার

ভাঙচুর ও প্রাধ্যক্ষের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) স্যার পি জে হার্টজ ইন্টারন্যাশনাল হলে বসবাসরত নেপালি শিক্ষার্থী ডা. সন্দ্বীপ পান্ডেকে হল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এ ঘটনায় থানায় একটি জিডি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) সন্ধ্যায় পিজে হার্টজ হলের নেপালি শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে এই সাধারণ ডায়েরি করা হয়।

নেপালি শিক্ষার্থীকে মাদকাসক্ত, শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত উল্লেখ করে শাহবাগ থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান।

হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. মহিউদ্দিন বলেন, ‘নেপালি শিক্ষার্থী সন্দ্বীপকে মাদকাসক্ত মনে হয়েছে। সে হলে ভাঙচুর করেছে। তাই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

প্রশাসনের করা সাধারণ ডায়েরিতে বলা হয়, নেপালি ছাত্র ডা. মায়াক আচারিয়ার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তার বন্ধু ডা. সন্দ্বীপ পান্ডে ২০১৬ সালের ২৭ জুলাই থেকে পি জে হার্টগ ইন্টারন্যাশনাল হলের ১৩০ নম্বর কক্ষে অতিথি শিক্ষার্থী হিসেবে অবস্থান করছেন। সন্দ্বীপ মাদকাসক্ত। কয়েক দিন আগে হলের টিভি কক্ষে ফুটবল খেলা দেখার সময় তিনি তিনটি চেয়ার ও অন্যান্য জিনিসপত্র ভাঙচুর করেন।

উল্লেখ্য, নেপালি শিক্ষার্থীর নাম ডা. সন্দ্বীপ পান্ডে। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) শিক্ষার্থী। তিনি অতিথি হিসেবে গত তিন বছর ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পি জে হার্টগ ইন্টারন্যাশনাল হলে অবস্থান করছিলেন।