ধর্ষণের পর খুন করে পুঁতে রাখা হয় আশ্রমের ১১ কিশোরীকে

ভারতের বিহারের একটি আশ্রম (হোম) থেকে সম্প্রতি ১১ কিশোরী নিখোঁজ হয়েছে। বিহারের মুজফফরপুরের হোম থেকে নিখোঁজ ওই কিশোরীদের হত্যা করা হয়েছে বলে আশঙ্কা করছে দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই। শুক্রবার (৩ মে) গোয়েন্দা সংস্থাটি সুপ্রিম কোর্টে এ আশঙ্কার কথা জানিয়েছে।

সিবিআই’র সন্দেহ, ওই আশ্রমের ম্যানেজার ব্রজেশ ঠাকুর এবং তার সহযোগিরা মিলে ওই ১১ কিশোরীকে ধর্ষণ এবং খুন করেছে। শুধু তাই নয়, হোমের বাকি মেয়েরাও যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে।

সিবিআই জানায়, ওই মেয়েদের খুন করে যেখানে পুঁতে দেওয়া হয়েছে, সেখান থেকে বেশ কিছু হাড়গোড়ও উদ্ধার করা হয়েছে। হোমের অন্য বাসিন্দারা এগুলো উদ্ধার করেছে।

নিহত কিশোরীদের পরিচয় জানার চেষ্টা করছে সিবিআই। ওই ঘটনায় সমাজের উচ্চপদস্থ কয়েকজনও যুক্ত থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে সমাজকর্মী নিবেদিতা ঝা’র অভিযোগ, ব্রজেশ ঠাকুরসহ প্রভাবশালী কয়েকজনকে রক্ষা করার চেষ্টা করছে সিবিআই।