সাতক্ষীরারেঞ্জে মধু আহরণ উৎসবের উদ্বোধন

সুন্দরবন পশ্চিম বন বিভাগ সাতক্ষীরারেঞ্জের আয়োজনে সোমবার সকালে সুন্দরবন সংলগ্ন বুড়িগোয়ালিনী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্তরে সাতক্ষীরারেঞ্জের মধু আহরণ উৎসবের উদ্বোধন করা হয়।

সুন্দরবন পশ্চিম বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বশিরুল আল মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্টানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাতক্ষীরা-৪ আসনের এমপি এস এম জগলুল হায়দার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শ্যামনগর নব-নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম আতাউল হক দোলন, বর্তমান ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম মহসীন উল মুলক, বুড়িগোয়ালিনী ইউপি চেয়ারম্যান ও সিএমসি সভাপতি ভবতোষ কুমার মন্ডল, সাতক্ষীরারেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক জি এম রফিক আহম্মেদ, গাবুরা ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদুল আলম, বুড়িগোয়ালিনী নেীপুলিশ ফাঁড়ির ওসি অনিমেষ হালদার, ওয়াইল্ডটিম কনজারভেশন ম্যানেজার রাম কৃষ্ণ মোহন্ত, প্রধান শিক্ষক মৃনাল কান্তি বিশ্বাস, ওয়াইল্ডটিম সাতক্ষীরারেঞ্জর কর্মকর্তা আবু জাফর, সাংবাদিকবৃন্দ, মেীয়ালীবৃন্দ প্রমুখ। উদ্বোধন শেষে মেীয়ালরা সুন্দরবনে মধু সংগ্রহের জন্য চলে যান।

জানা যায় প্রতিবছর ১লা এপ্রিল মধু আহরণ উৎসবের আনুষ্টানিকভাবে শুরু হয় এবং চলে তিন মাস। প্রতি বছর শত শত মেীয়ালরা মধু সংগ্রহের জন্য নেমে পড়ে বনে এবং বন বিভাগথেকে পাশ প্রদান করা হয়। মধু সংগ্রহের পূর্বে মেীয়ালদের মধু সংগ্রহের পদ্ধতি সম্পর্কে অবহিত করা হয় যাতে মধুর চাক ও মেীমাছির ক্ষতি না হয়। মধু সংগ্রহের ক্ষেত্রে বনবিভাগ নিদিষ্ট এলাকাও দেখিয়ে থাকেন। মধু আহরণ মেীসুমে বন বিভাগ মধু ও মোমের একটি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে থাকেন। স্থানীয় প্রবীনদের মতে জানা যায় ১৮৬০ সাল থেকে সুন্দরবনের মধু সংগ্রহ শুরু হয়েছে।

 

রনজিৎ বর্মন, শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি