স্ত্রীর কাছে ক্রিকেটার তুষারের শেষ আকুতি ‘ক্ষমা করে দিও’

রাজধানীর বনানীতে বহুতল ভবন এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেছে ফায়ার সার্ভিস। অগ্নিকাণ্ডে ২৫ জনের মধ্যে ছিলেন এক ক্রিকেটারও। মাগুরার স্থানীয় ক্রিকেট লিগে নিয়মিত খেলা এই ক্রিকেটাররের নাম নাহিদুল ইসলাম তুষার। ক্রিকেটার তুষার খেলাধুলার পাশাপাশি এয়ার হ্যারিটেজ নামের একটা প্রতিষ্ঠানে চাকরিরত ছিলেন।

জানা যায়, তুষারের বাবা ইশহাক আলি মাগুরা হেলথের ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তবে অবসরের পর পৈত্রিক বাড়ি টাঙ্গাইলে ফিরে গেছেন তারা। সেখানেই পরিবারসহ বসবাস করতেন।

তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার সঙ্গে খেলা খান নয়ন নামের আরেক সাবেক ক্রিকেটার। খান নয়ন বর্তমানে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) বর্তমান চ্যাম্পিয়ন দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মিডিয়া ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুষারের মৃত্যু সংবাদটি নিশ্চিত করে খান নয়ন লেখেন, ‘রাত সাড়ে ১০টায় অভি নামে আমার এক বন্ধু ফোন করে বলল, আমাদের মাগুরার এক বন্ধু নাহিদুল ইসলাম তুষার বনানীতে আগুনে পুড়ে মারা গেছে। এই তুষার, বাঁ হাতি পেস বোলার ছিল। আমরা সবাই লেফটি তুষার বলে তাকে ডাকতাম। মাগুরা জেলা টিমের ক্রিকেটার ছিল। স্টেডিয়ামের অপর পাশে আদর্শ পাড়াতে থাকত ওরা। বাবার চাকরির সুবাদে মাগুরা থাকত। দারুণ এক হাসিখুশি বিনয়ী ছেলে।’

বৃহস্পতিবার ভবনে আটকা পড়ার পর মোবাইল ফোনে তুষার তার বাবা এছাক আলী, মা নুরুন্নাহার, বড় ভাই তুহিন ছোট ভাই শিশিরের সঙ্গেও কথা বলেন। এ সময় বাঁচানোর জন্য তাদের কাছে সাহায্য চেয়ে তিনি বলেন, আমাদের ভবনে আগুন লেগেছে। এই মুহুর্তে আগুন দাউ দাউ করে জ্বলছে। এখান থেকে বেরুতে পারবো কি না জানি না। আমার জন্য সবাই দোয়া করো এবং মাফ করে দিতে বলো।

কিন্ত কেউ তার এই করুণ আর্তনাতে সারা দিতে পারেন নি। একথাগুলো বলার পর বেলা দুইটার পর থেকে মোবাইল ফোন বন্ধ হয়ে যায়। ভয়াবহ আগুনোর লেলিহান শিখায় অন্যদের সাথে তুষারের জীবনপ্রদীপও মুহুর্তের মধ্যে কেড়ে নেয়।

এরপর বৃহস্পতিবার রাতে বনানী থেকে তুষারের মরদেহ মির্জাপুরের ভানুয়াবহ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছালে শতশত মানুষ সেখানে ভীড় জমায়। এসময় সেখানে এক হৃদয়বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়। শুক্রবার সকাল দশটায় গ্রামের বাড়িতে তার নামাজে জানাজা শেষে সামাজিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে। জানাজায় এলাকার শতশত মানুষ অংশ নেন।

এদিকে বনানীর এফআর টাওয়ারের অগ্নিকাণ্ডে মির্জাপুরের ছেলে তুষার নিহত হওয়ার খবরে তার রুহের মাগফিরাত কামনা করে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা একাব্বর হোসেন এমপি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here