মর্গে মরদেহের পকেটে থাকা বেজে ওঠে মোবাইল ফোন!

রাজধানীর বনানীতে ২২ তলা বিশিষ্ট এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের মরদেহ রাখা হয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে। গতকাল (২৮ মার্চ) রাত ১০টার দিকে মর্গে আনা হয় আরও সাতটি লাশ। তখনো তারা অজ্ঞাত। ঠিক এমন সময় একটি মরদেহের পকেটে থাকা মোবাইল ফোন বেজে ওঠে। আর তাতেই মিলে একজনের পরিচয়।

জানা যায়, ওই যুবকের নাম ফজলে রাব্বি (২৭)। বাড়ি নারায়ণগঞ্জের ভূইগড়ে। এক সন্তানের এই জনকের সঙ্গে থাকা ফোন বেজে উঠলে তা বের করে কথা বলেন লাশের সঙ্গে থাকা আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলামের একজন কর্মী। ফোনের অপর প্রান্ত থেকে তার পরিচয় জানালেন রাব্বির বড় বোন শাম্মী আক্তার।

ফোনে শাম্মী আক্তার জানান, ফজলে রাব্বি এফ আর টাওয়ারের ১১ তলার ইউরো সার্ভিস নামের একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন।

অগ্নিকাণ্ডে এখন পর্যন্ত ২৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১টার দিকে ওই ভবনটিতে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের ২২টি ইউনিট, সেনাবাহিনী, বিমানবাহিনী ও নৌবাহিনীর উদ্ধারকারী দল দীর্ঘক্ষণ কাজ করার পর সন্ধ্যা ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

এ ছাড়া আহত হয়েছেন আরও ৭০ জন। তারা রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ইতিমধ্যে নিহতদের পরিচয় শনাক্ত করে ২৪ জনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। শুধু নিহত শ্রীলঙ্কার নাগরিক নিরস দিবনে রাজাকে হস্তান্তর করা হয়নি। তার লাশ রয়েছে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে।