‘বাঙালির মুক্তির অভিষ্ট লক্ষ্য থেকে যাকে, বিচ্যুত করা যায়নি তাঁর নাম হচ্ছে বঙ্গবন্ধু’

যারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে অস্বীকার করেন, তারা বাংলাদেশকেই অস্বীকার করেন মন্তব্য করে জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শুধু জাতির পিতা নন, তিনি একজন বহুমাত্রিক নেতা ছিলেন। এটি কোনো আবেগের কথা নয়, এটাই বাস্তবতা। আর জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময় পাকিস্তানের কারাগারে বসে বাঙালির মুক্তির অভিষ্ট লক্ষ্য থেকে যাকে বিচ্যুত করা যায়নি তাঁর নাম হচ্ছে বঙ্গবন্ধু।

১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০১৯ উপলক্ষে কাহারোল উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে উপজেলা প্রশাসন এর আয়োজনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

১৯৭১ সালে যার একটি ডাকে সাড়া দিয়ে ৩০ লাখ মানুষ জীবন দিয়েছেন তাঁর নাম বঙ্গবন্ধু একথা উল্লেখ করে এমপি গোপাল আরো বলেন, তাঁর কথায় দেশের অগণিত মানুষ মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন। জয় বাংলা শ্লোগানে সবাইকে এক করে দেশের মানুষকে মুক্তি সংগ্রামে জাগ্রত করেছেন। ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ হচ্ছে তার স্বাধীনতার ঘোষণা। স্বাধীনতা পরবর্তী হাজারো সমস্যার মাঝেও তিনি দেশকে সাজিয়েছেন। এসব বঙ্গবন্ধুর দ্বারাই সম্ভব হয়েছিল। বর্তমানে তাঁরই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই ধারাবাহিকতায় দেশকে উন্নতির চরম শিখায় নিয়ে যাওয়ার প্রাণপন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা এখন মধ্য আয়ের দেশে উন্নিত হয়েছি। আর ২০৪১ সালে উন্নত দেশে পরিণত হবো।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাসিম আহমেদ এর সভাপতি আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মামুনুর রশীদ চৌধুরী, কাহারোল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম হাসান।

এর আগে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বীরগঞ্জ ও কাহারোল উপজেলা পরিষদ চত্বরে বঙ্গবন্ধু’র প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পন, রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন এমপি গোপাল।

শেখ মোঃ জাকির হোসেন, বিরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি