নিউজিল্যান্ডের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা, দেশে ফিরতে চান তামিম-মুশফিকরা

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আজ শুক্রবার জুমার নামাজের সময় একটি মসজিদে গোলাগুলির ঘটনায় নিহত হয়েছেন অনেক মুসুল্লি। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত অনেকে মারা যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে, আর বহু লোক আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অল্পের জন্য প্রাণে বেঁছে ফিরেছেন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা। এ মুহূর্তে তারা হোলেটে নিরাপদ অবস্থায় থাকলেও দ্রুত দেশে ফিরতে চান।

শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় সময় আনুমানিক ১টা ৪০ মিনিটে অজ্ঞাত দুই বন্দুকধারী হামলা চালান সেন্ট্রাল ক্রাইস্টচার্চের মসজিদ আল নুরে। সে মসজিদেই নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। সৌভাগ্যবশত মসজিদে ঢোকার আগমুহূর্তে হামলার খবর পেয়ে দ্রুততার সঙ্গে সে স্থান ত্যাগ করেন তামিম, মিরাজ, তাইজুলরা।

এই মুহূর্তে ক্রিকেটারা হোটেলে নিরাপদে আছেন। তবে আতঙ্কিত অবস্থায় আছেন তারা এবং প্রত্যেকেই এখন।দেশে ফিরে আসতে চান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর বাংলাদেশ প্রতিনিধি মোহাম্মদ ইসাম।

তিনি নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডকে বলেন, ‘আমার মনে হয় না তারা এখন ক্রিকেট খেলার মতো অবস্থায় আছে। তারা যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফিরতে চায়। আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, আমি যা শুনছি তা থেকেই বলছি।’

ঘটনার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে ইসাম আরও বলেন, ‘যখন ঘটনাটা ঘটছিল, তখন একজন ক্রিকেটার আমাকে ফোন করে বললেন যে যাতে আমি পুলিশকে এটি জানাই। কিন্তু আমিও ক্রাইস্টচার্চে নতুন। ফলে জানা নেই কার সঙ্গে যোগাযোগ করা উচিৎ। তাই আমি একজন অপরিচিত ব্যক্তির গাড়িতে করে কোনোভাবে পুলিশ স্টেশনে গিয়ে তাদের জানাই। পুরো ঘটনাটাই মর্মান্তিক।’

জানা যায়, বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা অনুশীলন শেষে তারা ওই মসজিদে জুম্মার নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন। মসজিদে প্রবেশের মুহূর্তে স্থানীয় একজন একজন মহিলা তাদের মসজিদের ভেতরে বন্দুকধারীদের অবস্থানের কথা জানায়। খেলোয়াড়েরা তখন আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এবং দৌড়ে হ্যাগলি ওভালে ফেরত আসেন।

এদিকে আগামীকাল ক্রাইস্টচার্চের হুগলিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় ও শেষ টেস্ট খেলতে নামার কথা ছিল বাংলাদেশের। এ ম্যাচ খেলা নিয়ে এখনো নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here