নিউজল্যান্ডের মসজিদে চালানো হামলার সময় লাইভে ছিলেন হামলাকারী

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আজ শুক্রবার জুমার নামাজের সময় দুটি মসজিদে গোলাগুলির ঘটনায় নিহত হয়েছেন অনেক মুসুল্লি। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত অনেকে মারা যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে, আর বহু লোক আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। বন্দুকধারীর হামলায় অন্তত ৯-২৭ জন নিহত হয়েছেন বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড জানিয়েছে।

নিউজল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে চালানো হামলার সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লাইভে ছিলেন হামলাকারী। ১৭ মিনিট ধরে ওই হামলার লাইভ ভিডিও প্রচারিত হয়। হামলাকারী নিজেকে ব্রেনটন ট্যারেন্ট বলে পরিচয় দিয়েছেন। ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলিয়ান-বংশোদ্ভূত শ্বেতাঙ্গ তিনি। হামলাকারী আল নূর মসজিদের সামনে তার গাড়ি পার্ক করার মধ্যে দিয়ে লাইভস্ট্রিম শুরু হয়। চালকের আসনে বসে থাকা হামলাকারীর পাশের সিটেই অন্তত তিনটি অস্ত্র রাখা দেখা যায়।

ধারণা করা হচ্ছে হামলাকারী ক্যামেরাটা তার মাথার সঙ্গে বেঁধে রেখেছিলেন। সঙ্গে থাকা অস্ত্রগুলোর মধ্যে অন্তত একটি সেমি-অটোমেটিক ছিল। অস্ত্রগুলোর ওপরে সাদা রঙে কিছু লেখাও ছিল। মসজিদে ঢুকেই নির্বিচারে গুলি চালাতে শুরু করেন তিনি। অতির্কিত এই হামলা থেকে একজন পালানোর চেষ্টা করলে হামলাকারী আরও হিংস্র হয়ে তাকে আরও বেশি গুলি শুরু করেন। মসজিদ থেকে বের হওয়ার পথ বন্ধ করে দিয়ে এই হামলা চালানো হয়।

ভিডিওটিতে দেখা যায়, মসজিদের বিভিন্ন কোনায় মানুষের লাশ আছে আর বন্দুকধারী ঘুরে ঘুরে লাশের ওপরই গুলি চালাচ্ছে।

মসজিদে মাত্র তিন মিনিটের অবস্থান করে নির্বিচারে মানুষের ওপর গুলি চালিয়ে মসজিদের সামনের দরজা দিয়েই বের হয়ে যান তিনি। গাড়ি নিয়ে রাস্তায় উঠে সেখানেও নির্বিচারে গুলি চালান তিনি।

https://www.facebook.com/vomuslim/videos/1072765152896416/