অপারেশন থিয়েটারে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ, ফ্রিজে রাখা মাছ ও মাংস!

পাবনার স্বাস্থ্য বিভাগের একটি ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে সোমবার শহরের টার্মিনাল এলাকায় অবস্থিত ব্রাইটনেশন ক্লিনিক অ্যান্ড নার্সিং ইনস্টিটিউট গিয়ে দেখা যায় হাসপাতালে অপারেশন থিয়েটারে রয়েছে মেয়াদোত্তীর্ণ জীবন রক্ষাকারী ওষুধ। ফ্রিজে জীবন রক্ষাকারী ওষুধের সঙ্গে রাখা হয়েছে মাছ ও মাংস। এর সঙ্গে অন্যান্য অভিযোগতো আছেই।  এমন অবস্থা দেখে ব্রাইটনেশন ক্লিনিককে ১ লাখ টাকা জরিমানা এবং সিলগালা করে দেয়া হয়।

সোমবার বিকেলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নিয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসান এবং সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. খাইরুল কবির।

একই সময় পাবনা থানা পাড়ায় অবস্থিত অনুমোদনহীন ধানসিঁড়ি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালিয়ে নানা অনিয়ম এবং অব্যবস্থাপনা পরিলক্ষিত হওয়ায় ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে ধানসিঁড়ি ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে আগামী জুন মাসের মধ্যে লাইসেন্স হালনাগাদসহ অনিয়ম দূর করার জন্য সময় দিয়ে সতর্ক করা হয়।

পাবনার সিভিল সার্জন ডা. কেএম আবু জাফর বলেন, ব্রাইটনেশন ক্লিনিক অ্যান্ড নার্সিং ইনস্টিটিউটের লাইসেন্স মেয়াদোত্তীর্ণ। রোগী রাখা, এবং অপারেশনসহ চিকিৎসা সংক্রান্ত অন্যান্য সবগুলো বিষয়ই মানহীন। বিশেষ করে অপারেশন থিয়েটারে মেয়াদোত্তীর্ণ জীবন রক্ষাকারী ওষুধ পাওয়া যায়। অপারেশন থিয়েটারের ফ্রিজে জীবন রক্ষাকারী ওষুধের সঙ্গে রাখা হয়েছে মাছ ও মাংস। যা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে এবং এ ধরনের অভিযোগ কোনো হাসপাতালের বিরুদ্ধে পেলে সেগুলোকে জরিমানাসহ সিলগালা করে দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।