‘পারমাণবিক শক্তিধর দুই দেশের উচিত দায়িত্বশীল আচরণ করা’

ভারত পাকিস্তানের অব্যাহত উত্তেজনার মধ্যে এক বক্তৃতায় ভারতের শুভবুদ্ধির আহবান জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। অব্যাহত উত্তেজনা পরিস্থিতির মধ্যে টেলিভিশন বক্তৃতায় তিনি বলেছেন, পারমাণবিক শক্তিধর দুই দেশের উচিত দায়িত্বশীল আচরণ করা।

”ভারতের উদ্দেশ্যে আমি যা বলতে চাই, তা হলো, এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে আমার প্রজ্ঞা এবং বিবেচনা দিয়ে কাজ করবো।”

ইমরান খান বলছেন, ”সব বড় বড় যুদ্ধ ভুল হিসাবের কারণে হয়েছে। হিটলার কখনো ভাবেননি যে, যুদ্ধ এতো বছর ধরে চলবে। আমেরিকানরা কখনো ভাবেনি যে, ভিয়েতনাম আর আফগানিস্তানের যুদ্ধ কয়েক দশকে গড়াবে।”

”আমার প্রশ্ন হলো, যে অস্ত্র (পারমাণবিক) আমাদের দুই দেশের কাছেই রয়েছে, আমরা কি এমন একটি ভুল হিসাবের দায়দায়িত্ব সামলাতে পারবো? আমরা যদি এটা ঘটতে দেই, তাহলে এটা আমার অথবা নরেন্দ্র মোদি, কারো নিয়ন্ত্রণেই আর থাকবে না।”

পাকিস্তানের পাল্টা হামলার পক্ষে সাফাই তুলে ধরে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, তিনি ১৪ই ফেব্রুয়ারির জঙ্গি হামলার তদন্তে সহায়তা করার জন্য তিনি প্রস্তাব দিয়েছিলেন। ওই হামলায় অন্তত ৩৪জন সেনা সদস্য নিহত হয়, যার পর থেকেই দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা শুরু হয়েছে।

”আমরা ভারতকে বলেছিলাম যে, তোমরা যদি একতরফা কোন ব্যবস্থা নাও, তাহলে আমরা জবাব দিতে বাধ্য হবো, যদি তোমরা কিছু করো। কিন্তু ভারত নিজেরাই বিচারক, জুরি আর জল্লাদের ভূমিকা নিয়েছে।”

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, পাকিস্তানের ভেতর হামলার সময় দুটি ভারতীয় মিগ বিমানকে ভূপাতিত করা হয়েছে।

এর আগে ভারত বলেছিল তারা একটি বিমান হারিয়েছে।

“আমরা তাদের দুটো মিগ বিমান ভূপাতিত করেছি। পাইলটেরা আমাদের সাথেই আছে,” বলেন মি. খান।

“কিন্তু এরপর আমরা কোথায় যাবো? আমি ভারতকে প্রশ্ন করছি। আমাদের অবশ্যই দায়িত্বশীল হতে হবে।”

তিনি বলছেন, বুধবার সকালের হামলার উদ্দেশ্য কাউকে হত্যা করা বা ক্ষতি করা ছিল না। তারা শুধুমাত্র পাকিস্তানের ক্ষমতার বিষয়টি দেখাতে চেয়েছেন।

ইমরান খান এই বক্তৃতা দিলেও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র এই উত্তেজনা নিয়ে এখনো কোন মন্তব্য বা টুইট করেননি।