উত্তরায় ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে রিফাত খুন, লাশ নিয়ে আন্দোলন

রাজধানী উত্তরা আবাসিক এলাকায় ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে নিহত হয় রিফাত নামের ৭ বছর বয়সী এক শিশু। ৩ বন্ধুকে নিয়ে ঘুড়ি উড়াচ্ছিল রিফাত। ঘুড়িটার সুতো কেটে পাশের বাড়িতে গিয়ে পড়ে। ঘুড়ি আনতে গেলে রিফাতকে আটকিয়ে রাখে বাড়িওয়ালা। ভয়ে সাথের বন্ধুরা পালিয়ে যায়। ঘটনাটা গত শনিবারের। অনেক খোঁজাখুঁজির পর দুইদিন আগে ঐ বাড়ির সেফটি ট্যাংকিতে মিললো রিফাতের লাশ। 

বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টা থেকে রিফাত হত্যার বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করে এলাকাবাসী। পরে দুপুর ১টার দিকে বিক্ষোভকারীরা  সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়।

বাড়ির মালিক বর্তমানে পলাতক আছে। রিফাতের পরিবারের দাবী, দক্ষিণখান থানার ওসি ঐ বাড়িওয়ালাকে পালাতে সহায়তা করেছে।

এলাকাবাসী বাড়িওয়ালা ও দক্ষিণখান থানার ওসির বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমে উত্তরার আজমপুরে আব্দুল্লাহপুর-মহাখালী রাস্তা বন্ধ করে রেখেছে।

দক্ষিণখান থানা পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে, ঘটনার সঙ্গে জড়িত বা হত্যাকারীকে খুঁজতে চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে উত্তরা জোনের ডেপুটি পুলিশ কমিশনার (ডিসি) নাবিদ কামাল শৈবাল জানান, বিষয়টি নিয়ে পুলিশ তদন্ত করছে। তদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।