ঘন কুয়াশার কারণে বসাতে দেরি হচ্ছে পদ্মা সেতুর সপ্তম স্প্যান

বুধবার সকালে বসানোর কথা ছিল পদ্মা সেতুর সপ্তম স্প্যানটি । কিন্তু ঘন কুয়াশার কারণে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর সপ্তম স্প্যানটি ৩৫ ও ৩৬ নম্বর পিলারের ওপর এখনও বসানো সম্ভব হয়নি। যদিও আজ সকাল সাড়ে ৮টায় স্প্যান বসানোর কথা ছিল।

তবে কুয়াশা কেটে গেলে দুপুর ১২টার দিকে সপ্তম স্প্যানটি বসানো হবে বলে জানিয়েছেন পদ্মা সেতুর উপসহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবীর। আর এই স্প্যানটি বসানোর মাধ্যমে দৃশ্যমান হবে সেতুর সোয়া এক কিলোমিটার।

তিনি বলেন, বুধবার সকালে পদ্মা সেতুর সপ্তম স্প্যানটি বসানোর কথা ছিল। কিন্তু ঘন কুয়াশার কারণে দেরি হচ্ছে। দুপুর নাগাদ বসানো হবে।

আগামী ২-৩ মাসের মধ্যে আরও স্প্যান বসানো হবে বলে আশা করে তিনি আরও বলেন, ইতিমধ্যে সেতুর প্রায় ৭২ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। এটি বসানো হলে প্রায় ৭৫ শতাংশ কাজ শেষ হবে। চলতি বছরের মধ্যে সবকটি স্প্যান বসিয়ে সেতুটি দৃশ্যমান করে তুলব।

এর আগে শক্তিশালী ভাসমান ক্রেন তিয়ানি হাউ মাওয়ার মুন্সীগঞ্জের কুমারভোগের বিষেশায়িত জেডি থেকে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় স্প্যানটি নিয়ে জাজিরা পয়েন্টে পৌঁছায়। এ স্পেনটি বসানোর মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতুর কাজ আর একধাপ এগিয়ে যাবে। সেতু কর্তৃপক্ষ দাবি করছে, ইতিমধ্যে সেতুর প্রায় ৭২ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। এটি বসানো হলে ৭৫ শতাংশ কাজ শেষ হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর সেতুর প্রথম স্প্যান, ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি দ্বিতীয় স্প্যান, ১০ মার্চ তৃতীয় স্প্যান, ১৩ এপ্রিল চতুর্থ স্প্যান, ২৯ জুন পঞ্চম স্প্যান বসানো হয়। এবং গত ২৩ জানুয়ারি ষষ্ঠ স্প্যানটি বসানো হয়।

সপ্তম স্প্যান বসানোর সংবাদে পদ্মাপাড়ের মানুষের মধ্যে ব্যাপক আনন্দ উৎসাহ-উদ্দীপনা লক্ষ করা গেছে।