স্কুল নিয়ে মামলা করায় বাদীর ছেলেসহ দুই ছাত্রকে পিটিয়ে আহত করেছে প্রধান শিক্ষক

স্কুলের মামলার তদ্বীর করায় বাদীর ছেলেসহ দুই ছাত্রকে পিটিয়ে আহত করেছে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তাদেরকে উদ্ধার করে সদর হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত দুই ছাত্র হচ্ছে শিকারপুর গ্রামের সাইদুর রহমান সাইদের ছেলে সাইফুর রহমান শুভ এবং একই গ্রামের খোকন মালিথার ছেলে আল-আমিন। ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহ শিকারপুর আব্দুর রহমান জর্দ্দার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে।

এঘটনায় ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেনকে আসামী করে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। লিখিত অভিযোগে জানা গেছে বিদ্যালয় ছুটি থাকায় ওই দুই ছাত্র বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজ গ্রামের বিদ্যালয়ের শহীদ নিমারের সিড়িতে বসে গল্প করছিল। এসময় প্রধান শিক্ষক তাদের দুইজনকে ধরে নিয়ে একটি কক্ষের মধ্যে আটকিয়ে এলোপাতাড়ি কিল, ঘুষি, চড়থাপ্পড় ও মাথার চুল ধরে ওয়ালের সাথে ধাক্কা মারতে থাকে। এসময় ওই দুই ছাত্রের ডাক চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে তাদেরকে উদ্ধার করে সদর হাসাপাতালে ভর্তি করে।

বিষয়টি নিয়ে প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন জানান, ওই দুই ছাত্র প্রায় সময় আমার বিদ্যালয়ে এসে বিশৃঙ্খলা করে। তাই আমি তাদেরকে ডেকে বিদ্যালয়ে না আসার জন্য নিষেধ করে দিয়েছি। আমি তাদের মারধর করেনি। ওই দুই ছাত্র রুম থেকে বের হতে গিয়ে দরজায় ধাক্কা লেগে ফোলা জখম হতে পারে।

এব্যাপারে সদর থানার এসআই মিজানুর রহমান জানান, যেহেতু শিক্ষার বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেখেন। তাই তার অনুমতি ছাড়া মামলা রেকর্ড হবে না।

এলাকাবাসি জানায়, দীর্ঘদিন ধরে ঝিনাইদহ শিকারপুর আব্দুর রহমান জর্দ্দার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি নিয়ে আদালতে একটি মামলা চলছে। ওই মামলার দতারকি করেন আহত ছাত্র শুভর পিতা সাইদুর রহমান সাইদ। এঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন সুযোগ পেয়ে ওই দুই ছাত্রকে পিটিয়ে আহত করেন বলে অভিযোগ।

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি