হাসপাতালের নতুন ভবনের স্টোর রুম থেকে আগুনের সূত্রপাত

রাজধানী ঢাকার সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নতুন ভবনের তৃতীয়তলায় আগুন লেগেছে। আজ বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় আগুন লাগার খবর পেয়ে দমকল বাহিনীর ১৬টি ইউনিট আগুন নেভাতে গেছে বলে ফায়ার সার্ভিসের কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে জানানো হয়। 

প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, হাসপাতাল থেকে ধোঁয়া উড়তে দেখে রোগীদের অনেকে ভয়ে বেরিয়ে আসেন। হাসপাতালের নতুন ভবনে স্টোর রুমে আগুন লেগেছে বলে হাসপাতাল সূত্রগুলো বলছে। ফায়ার সার্ভিস ও হাসপাতাল সুত্রগুলো প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে এই আগুনের সুত্রপাত হয়েছে।

সোহরাওয়ার্দীর নতুন ভবনের নিচতলার স্টোররুম থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। হাসপাতালের তৃতীয় তলার স্টোর রুমে অগ্নিকাণ্ডের পরপরই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন করে দেয়। এতে পুরো হাসপাতাল অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়। এ সময় রোগী ও তাদের স্বজনরা আগুন আগুন বলে চিৎকার করতে থাকলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তাদের চিৎকারে হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স, ওয়ার্ডবয়, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সবাই নিরাপদে তাদের হাসপাতালের বাইরে নিয়ে যান।

ডাক্তার ও নার্সরা রোগীর স্বজনরা রোগীদের নিরাপদে সরিয়ে আনতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। তারা অপেক্ষাকৃত বেশি অসুস্থ রোগীদের বাইরে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক চিকিৎসক জানান, রোগীদের মধ্যে যারা মুমূর্ষু তাদের অন্য হাসপাতালে রেফার করা হচ্ছে। যাদের রেফার না করলেও চলে তাদের আপাতত হাসপাতাল সংলগ্ন খোলা মাঠে রাখা হয়েছে। এখন পর্যন্ত তাদের কাছে হতাহতের কোনো খবর নেই বলেও জানান চিকিৎসকরা।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের অপারেটর শাহাদাত হোসেন জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আগুন নেভাতে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট। রোগীদের অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। তবে, তাৎক্ষণিক অগ্নিকাণ্ডের কারণ ও ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি।

আগুনের খবর পেয়েই অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তার উপস্থিতিতে রোগীদের চিকিৎসার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, আগুন প্রায় নিয়ন্ত্রণে আছে। রোগীদের মধ্যে যারা একটু বেশি অসুস্থ তাদেরকে অন্য হাসপাতালে স্থানান্তর করা হচ্ছে। রোগীরা সকলেই নিরাপদে আছে।