সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ড, চরম দুর্ভোগে রোগীরা

রাজধানী ঢাকার সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নতুন ভবনের তৃতীয়তলায় আগুন লেগেছে। আজ বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় আগুন লাগার খবর পেয়ে দমকল বাহিনীর ১৬টি ইউনিট আগুন নেভাতে গেছে বলে ফায়ার সার্ভিসের কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে জানানো হয়।

আগুনের ধোঁয়ায় ভরে গেছে গোটা হাসপাতাল। এতে রোগী ও স্বজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টার পর রাত ৮টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। আগুনের কারণ সম্পর্কে তাৎক্ষণিকভাবে ফায়ার সার্ভিস কিছু জানাতে পারেনি।

আগুন নেভাতে গিয়ে শুরুতেই পানি পাচ্ছিল না ফায়ার ইউনিট। পরে কৃষি প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটের পুকুর থেকে পানি তুলে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে। এদিকে ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সন্ধ্যা ৫টা ৫৫ মিনিটে হাসপাতালের নতুন ভবন থেকে ধোঁয়া উড়তে দেখে রোগীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। আগুন লাগার পরপরেই হাসপাতালটির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। পরে সোয়া ৭টার দিকে বিদ্যুৎ ফিরে আসে।

সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে হাসপাতালের সকল রোগীদের হাসপাতাল প্রাঙ্গণের মাঠে নামিয়ে আনা হয়। সেখানেই তাদের চিকিৎসা প্রধান করা হয়। পরবর্তীতে কয়েক’শ অ্যাম্বুলেন্স করে এসব রোগীদের বিভিন্ন হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। অনেক রোগীকে স্বজনরা বাসায় নিয়ে গেছেন।

এদিকে, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন। তিনি এ সময় সাংবাদিকদের বলেন, আগুনে কারো হতাহতের খবর আমরা পাইনি। যত রোগী ছিল, তাদের সবাইকে বের করে আনা হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক দেবাশীষ বর্ধন বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের দ্রুত নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট এক ঘণ্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।