দুই কেজি গাঁজা কম পাওয়ায় ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে অভিযোগ!

আজ সোমবার ভোর ৬টা কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া বাজার থেকে ঐ নারী মাদক ব্যবসায়ীকে ১ কেজি গাঁজাসহ হাতেনাতে আটক করে পুলিশ। দুই কেজি গাঁজা কম পাওয়ায় ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পরে এক নারী মাদক ব্যবসায়ী।

জানা যায়, সারারাত ডিউটি শেষে থানায় ফিরছিলেন থানার এস আই মোঃ জাকির হোসেন। এসময় তার কাছে ফোন আসে জরুরি পুলিশ সেবা ৯৯৯ থেকে। জানানো হয় ব্রাহ্মণপাড়া বাজারে এক নারী গাঁজা ব্যবসায়ী রয়েছে। এরপর রেস্ট নেয়ার সময় হলোনা তার। ফোর্সসহ ছুটে গেলেন আসামী ধরতে। তবে ঘটনাটা যে এমন হতে পারে তা ঘুনাক্ষরেও আন্দাজ করতে পারেননি তিনি। পুলিশ আসার আগেই স্থানীয় পাইকারি মাদক কারবারি পালিয়ে যায়।

তবে পুলিশে সাহায্য চেয়ে ৯৯৯ এ ফোন দেয়া খুচরা ব্যবসায়ী নারী সালমা বেগমকে(৪০) আটক করে পুলিশ।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গাঁজা ব্যবসায়ী সালমা বেগম থাকেন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায়। স্বামীর নাম জসিম উদ্দিন। আসল বাড়ি বরিশালের মুলাদীতে। কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ার সীমান্ত এলাকার মাদক ব্যাবসায়ী আব্দুল রহিমের কাছ থেকে গাঁজা কিনে নিয়ে বিক্রি করেন তিনি ও তার স্বামী।

ঘটনার দিন গতকাল শনিবার সকালে ৩ কেজি গাঁজার জন্য রিহিম নামের একজনকে টাকা দেয় সালমা। তিন কেজির টাকা নিয়ে তাকে গাঁজা দেয় এক কেজি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বাকবিতণ্ডা হয় রহিমের সাথে। এক পর্যায়ে জরুরি পুলিশ সেবা ৯৯৯এ ফোন দিয়ে বিস্তারিত জানায় সালমা। তাৎক্ষণিক ব্রাহ্মণপাড়া থানায় জানানো হয় ৯৯৯ থেকে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই কৌশলে সটকে পরে পাইকারি ব্যাবসায়ী রহিম মিয়া। এক কেজি গাঁজাসহ আটক করা হয় সালমা বেগমকে।

এ বিষয়ে এস আই জাকির হোসেন জানান, ধৃত আসামী সালমা ও পলাতক মাদক কারবারি শশিদল এলাকার আবুল হোসেনের পুত্র আব্দুল রহিমকে আসামী করে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং ৯৭১।