ঝিনাইদহে মানবাধিকার সংস্থার সহায়তায় মা ফিরে পেল তার দূধের শিশুকে

বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার সহায়তায় নির্যাতনের শিকার গৃহবধু ৫ দিন পর ফিরে পেল তার দুধের শিশুকে। নির্যাতনের শিকার এক গৃহবধু ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি আছে এমন সংবাদ পেয়ে সংস্থার জেলা মুথপাত্র আমিনুর রহমান টুকু দুইজন কর্মী নিয়ে শনিবার তাকে দেখতে যান।

নির্যাতনের শিকার গৃহবধু শিরিন আক্তার অভিযোগ করেন, বিবাহের কিছুদিন পর থেকে তার স্বামী মোঃ রবিউল ইসলাম প্রায়ই মারধর করতো। পারিবারিক কলহের কারনে ঘটনার দিন ২৩ জানুয়ারী রাতে যৌতুকের দাবীতে বেদম প্রহার করে। আরও মারধরের ভয়ে তার কোলের পুত্র সন্তান ঋজুয়ান (৫বছর) ও ৫ মাসের একটি কন্যা সন্তান রেখে সে ঐ রাতেই বাড়ী থেকে পালিয়ে এসে হাসপাতালে ভর্তী হয়। তার স্বামী রবিউল তার কোন খোঁজ নেয়না এবং দুধের শিশু ফাতেমাকেকে পর্যন্ত আটকিয়ে রাখে।

শিশু দুইটিকে উদ্ধার করে মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য গতকাল রবিবার সকালে মানবাধিকার কর্মী আমিনুর রহমান টুকু সংস্থার কয়েকজন কর্মীকে সাথে নিয়ে হরিনাকুন্ডু উপজেলার বেড়বিন্নি গ্রামে রবিউলের বাড়ী গিয়ে হাজির হন। সেখানে পাড়া প্রতিবেশী ও পরিবারের লোকজনের সাথে বৈঠক করেন।

বৈঠকের পর দুধের শিশুকে তার খালা নিলুফা ইয়াসমিন ও ভাই শাহরিয়ার এর কাছে শিশু ফাতেমাকে তুলে দেন হাসপাতালে মায়ের কাছে পৌছে দেয়ার জন্য। এসময় সংস্থার কর্মী শোভা সংস্থার নির্বাহী পরিচালক জাহিদুল ইসলাম, সাইদুর রহমান বাদশা, মেহেরুন্নেসা মিনু, আস্থা সংস্থার জান্নাতুল ফেরদৌস লাকি ও উই সংস্থার শাহিনুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি