এ বছর শীর্ষ প্রবৃদ্ধিশীল দেশের তালিকায় বাংলাদেশ

বিশ্বের যেসব দেশে ৭ শতাংশ বা এর বেশি প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে এ বছর তার মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশ। পাশাপাশি বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি বেশি হবে চীন, ভিয়েতনাম কিংবা কম্বোডিয়ার মতো রপ্তানি বাজারে বড় প্রতিদ্বন্দ্বীদের চেয়ে। জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে এ পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

বিশ্ব অর্থনীতির অবস্থা ও সম্ভাবনা-২০১৯ নামে প্রতিবেদনটি জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিভাগ (ইউএন-ডেসা), বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সংস্থা আংকটাড এবং এসকাপসহ পাঁচটি আঞ্চলিক কমিশন যৌথভাবে প্রকাশ করেছে।

জাতিসংঘের প্রতিবেদনে বাংলাদেশের অর্থনীতির সম্ভাবনার পাশাপাশি স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বেরোনোর পর কিছু চ্যালেঞ্জের কথা বলা হয়েছে।

বলা হয়েছে, শক্তিশালী বিনিয়োগ, বেসরকারি ভোগ ব্যয় এবং সংকুলানমুখী মুদ্রানীতির কারণে কয়েক বছর ধরে মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) ৭ শতাংশের বেশি প্রবৃদ্ধি হচ্ছে। চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৭.৪ শতাংশ। অবশ্য সরকারের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ৭.৮ শতাংশ। বিশ্বব্যাংক সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশ হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে।

জাতিসংঘের পূর্বাভাস অনুযায়ী ২০১৯ সালে অন্তত ১০টি দেশে ৭ শতাংশ বা এর বেশি প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে। বাংলাদেশ ছাড়া অন্য দেশের মধ্যে রয়েছে ভারত, কম্বোডিয়া, মিয়ানমার, ঘানা, ইথিওপিয়া এমনকি সিরিয়াও। রয়েছে দক্ষিণ সুদান।

ধারাবাহিক ভালো প্রবৃদ্ধি হচ্ছে এমন দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান শীর্ষ পর্যায়ে। কেননা স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের পর ২০২৭ সালে বাংলাদেশ ইউরোপীয় ইউনিয়নে রপ্তানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে না। প্রতিবেদনে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, মিয়ানমারসহ কিছু দেশের ক্ষেত্রে ২০১৯ সালের পূর্বাভাস বলতে ২০১৮-১৯ অর্থবছর বোঝানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here