আলোচিত রাম রহিম, ধর্ষণের পর সাংবাদিক হত্যা মামলা!

ভারতের স্বঘোষিত কারাবন্দী ধর্মগুরু গুরমিট রাম রহিম সিং এর ওপর দুই নারী ভক্তকে আশ্রমের ভেতরে ধর্ষণের অভিযোগের পর এবার একজন সাংবাদিক রাম চন্দ্র ছত্রপতিকে হত্যার দায়ে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। এ অভিযোগে তার বিরুদ্ধে আগামী ১৭ই জানুয়ারি শাস্তি ঘোষণার কথা রয়েছে। 

শুক্রবার হরিয়ানার বিশেষ আদালত তিন সহযোগীসহ তাকে দোষী সাব্যস্ত করে।

জানা যায়, উত্তর পশ্চিমাঞ্চলীয় সিরসা শহরে অবস্থিত ডেরা’র সদর দফতরে নারীদের ওপর যৌন নির্যাতনের কাহিনী ফাঁস করার দায়ে একটি পত্রিকার সম্পাদক রাম চান্দর চট্টপতিকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এ হত্যায় দোষী সাব্যস্ত করা হয় কুলদিপ সিং, নির্মল সিং ও কৃষ্ণান লালকে। মামলাটির শুনানিতে হরিয়ানার পাঁচকুলা আদালতে ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে জেল থেকে হাজিরা দেন স্বঘোষিত রাম রহিম।

‘পুরা সাচ’ এ ছাপা হওয়া ওই চিঠির সূত্র ধরেই রাম রহিমের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিস্তৃত তদন্ত শুরু হয়। যার ধারাবাহিকতায় ২০১৭ সালের অগাস্টে হরিয়ানার আদালত ধর্ষণের দায়ে বিতর্কিত এ ধর্মগুরুকে ২০ বছরের কারাদণ্ডও দেয়।

২০০২ সালে বাবার মৃত্যুর পর আনুশেল ছত্রপতি ‘পুরা সাচ’ পত্রিকার দায়িত্ব ঘাড়ে নিয়ে আশ্রমে নারী নির্যাতন ও যৌন হয়রানির অভিযোগগুলোকে চূড়ান্ত পরিণতি দিতে সর্বশক্তি নিয়োগ করেন।

পত্রিকায় রাম রহিম ও তার আশ্রমের ভেতরে যৌন হয়রানির চিঠিটি প্রকাশের পর সহকর্মীরা রাম চন্দ্র ছত্রপতিকে সতর্ক করেছিল বলেও জানান আনুশেল।