নতুন মন্ত্রিসভায় অর্থমন্ত্রী মুহিত নয়, আ হ ম মুস্তফা কামাল

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে বিপুল ব্যবধানে জয় লাভ করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। আজ গঠিত হয়েছে ৪৬ সদস্যের মন্ত্রিসভা। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ টানা তৃতীয় মেয়াদে যে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে, তাতে ডাক পেয়েছেন নতুন কয়েকজন। এই মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়াও থাকছেন ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী ও ৩ জন উপমন্ত্রী। তবে অনেক হেভিওয়েট মন্ত্রীর এবারের নতুন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই মেলেনি।

নতুন মন্ত্রিসভায় অর্থমন্ত্রী হচ্ছেন আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বর্তমানে পরিকল্পনামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বঙ্গভবনে আগামীকাল (সোমবার) বিকেলে নতুন মন্ত্রিসভার শপথ অনুষ্ঠিত হবে। এরপর থেকেই নতুন মন্ত্রীরা তাদের দায়িত্ব শুরু করবেন। এর আগে রোববার দুপুর থেকে শপথ নেয়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের কর্মকর্তারা ফোন করেন সংশ্লিষ্টদের। গণভবন থেকে বেলা দেড়টার দিকে তালিকা নিয়ে সচিবালয়ে ফেরেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, অর্থমন্ত্রী একটি গুরুত্বপূর্ণ পদ এবং এই মন্ত্রণালয়ের অধীনে অর্থ ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ রয়েছে। একটি দেশকে অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে নিতে হলে প্রয়োজনীয় নীতি সংস্কার ও প্রয়োগের দিকটি গুরুত্বপূর্ণ। সেক্ষেত্রে তত্ত্বীয় জ্ঞানের তুলনায় ব্যবহারিক বা বাস্তব অভিজ্ঞতা রয়েছে এমন কাউকেই নতুন অর্থমন্ত্রী বানানো জরুরি। এ জন্যই আ হ ম মুস্তফা কামালকে এ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে দেয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, অর্থমন্ত্রীর পদে আমলাদের আর গ্রহণযোগ্যতা নেই নীতিনির্ধারণী মহলে। বর্তমান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের দায়িত্ব পালনকালে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি, ব্যাংকিং খাতে হলমার্ক, বেসিক, বিসমিল্লাহ, এ্যাননটেক্সের মতো কেলেঙ্কারির ঘটনা ঘটেছে।

অপারদিকে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে আ হ ম মুস্তফা কামালের সাফল্যের জন্যই তিনি সরকারের এ গুরুত্বপূর্ণ পদটি পাচ্ছেন। কুমিল্লা-১০ আসন থেকে তিনি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য পদে নির্বাচিত হন। রাজনীতি ও ব্যবসা-বাণিজ্যের পাশাপাশি চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট হিসেবেও খ্যাতি লাভ করেছেন। মেধার স্বীকৃতি হিসেবে শিক্ষাজীবনেই তিনি লোটাস উপাধি পেয়েছিলেন।