ডিজে কনসার্টে একসঙ্গে নাচলেন সৌদির হাজারো তরুণ-তরুণী

নারী-পুরুষের একসঙ্গে কনসার্ট দেখার ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে সৌদি আরব। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি কনসার্টের ভিডিওতে দেখা যায়, হাজার হাজার সৌদি তরুণ-তরুণী একটি ডিজে (ডিস্ক জকি) সংগীতের সঙ্গে নাচছেন।

গত ১৪ ডিসেম্বর সৌদির রাজধানী রিয়াদে সৌদি সরকারের সরাসরি পৃষ্ঠপোষকতায় আয়োজন করা হয় একটি কনসার্টের। ফরাসি সংগীত তারকা দেভিদ গিতা এই কনসার্টকে মাতিয়ে তোলেন। আর এই প্রথম নারী-পুরুষের একসঙ্গে নেচেছে এই কনসার্টে। এতে বেশ ভালো করেই বোঝা যায়, এখন নারীদের নাচার ওপর বিধি-নিষেধ তুলে দিয়ে দেশটি সাংস্কৃতিক সংস্কার কর্মসূচি এগিয়ে নেওয়ারই বার্তা দিল। উপরন্তু নারী-পুরুষের একসঙ্গে নাচারও বিরল সুযোগ দিল সরকার। এছাড়া গত জুনে পারিবারিক অনুষ্ঠানে এক সৌদি তরুণীর নাচের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঝড় তোলে। তখন অভিযোগ উঠেছিল, মুসলিম দেশের আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন ওই তরুণী। শুধু তাই নয়। যুবরাজ বিন সালমান  নারীদের গাড়ি চালানোর ওপর নিষেধাজ্ঞাও তুলে দেন।

কিন্তু রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, এর মাধ্যমে যুবরাজ বিন সালমান বিশ্বকে দেখাতে চাইছেন, সৌদি আরব সংস্কারের পথেই আছে। ধীরে ধীরে সমাজে আধুনিকায়ন নিয়ে আসছে তারা। সমালোচকদের দাবি, সাংবাদিক জামাল খাসোগি খুনের পর সৌদি বিরোধী বিশ্ব জনমতের দৃষ্টি ভিন্ন দিকে সরিয়ে নিতেই এটি বিন সালমানের একটি কূটচাল।

সৌদি যুবরাজ যদিও সাংস্কৃতিক পরিবর্তন নিয়ে আসছেন, তবু রাজ পরিবারের কোনো সমালোচনা এখনো সহ্য করতে পারেন না তিনি।