জুলাই থেকে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে পুরোদমে তিমি শিকার করবে জাপান

ইন্টারন্যাশনাল হোয়েলিং কমিশন বা আন্তর্জাতিক তিমি শিকার কমিশন (আইডব্লিউসি) থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেবে জাপান। এরপর আগামী জুলাই থেকে ফের বাণিজ্যিক ভিত্তিতে পুরোদমে তিমি শিকার শুরু করবে এই দেশটি।

বাণিজ্যিক ভিত্তিতে আবারও তিমি শিকারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাপান। আর জাপানের এমন পদক্ষেপ বিশ্বজুড়ে সমালোচিত হয়েছে। এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ইন্টারন্যাশনাল হোয়েলিং কমিশন বা আন্তর্জাতিক তিমি শিকার কমিশন (আইডব্লিউসি) থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেবে দেশটি। ১৯৫১ সাল থেকে ইন্টারন্যাশনাল হোয়েলিং কমিশনের সদস্য হিসেবে কাজ করে আসা জাপানি এক কর্মকর্তা বলেন, তিমি খাওয়া তাদের দেশের সংস্কৃতির একটি অংশ। মাংস বিক্রির জন্য জাপানে অনেক বছর ধরে তিমি শিকার হয়ে আসছে। যদিও তিমি সংরক্ষণকারীরা এর তীব্র সমালোচনা করছেন অনেক আগে থেকেই।

বুধবারের এক ঘোষণার মাধ্যমে জাপান বাণিজ্যিক ভাবে তিমি শিকারে ফিরে আসার বিষয়টি  স্পষ্ট করে। এই ঘোষণার প্রেক্ষিতে তিমি সংরক্ষণ নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন সংস্থা বলছে, এর পরিণতি খুব খারাপ হবে।

প্রসঙ্গত, ১৯৮৬ সালে ইন্টারন্যাশনাল হোয়েলিং কমিশনের সদস্য ভুক্ত দেশগুলো তিমি শিকার না করার পক্ষে সম্মতি দেয়। এর মধ্যে জাপান, নরওয়ে এবং আইসল্যান্ডের মতো দেশগুলো জানায়, তিমির মাংস তাদের সংস্কৃতির অংশ হওয়ায় তারা পরিমিত পরিমাণে তিমি শিকার করবে।