‘নৌকায় ভোট দেবেন, আবার যেন আপনাদের জন্য কাজ করতে পারি’

নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে ৫ বছর পর আজ শ্বশুরবাড়ির এলাকা রংপুরের পীরগঞ্জে এসেছেন শেখ হাসিনা। রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় একাদশ সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আহসানুল হক চৌধুরী ডিউকের নির্বাচনী জনসভায় অংশ নেন এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

জনসভায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, রংপুর এক সময় দুর্ভিক্ষপীড়িত এলাকা ছিল। কিন্তু এখন আর সেই অবস্থা নেই। প্রত্যেকটি মানুষের খাদ্য, বাসস্থান, চিকিৎসা ও শিক্ষার ব্যবস্থা করে দিয়েছি। এখন আর মানুষকে বই কিনে পড়াশুনা করতে হয় না। আমি সবাইকে বিনামূল্যে বইয়ের ব্যবস্থা করে দিয়েছি।

জনসভায় শেখ হাসিনা আরও বলেন,  আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের স্বাধীনতা এনে দিয়েছে। এ সময় অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে আবারো নৌকায় ভোট চাইলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

তিনি বলেন, অনেক ক্লিনিক করে দিয়েছি। চিকিৎসার সংকট হয়নি। বিনে পয়সায় ঔষধ দিচ্ছি। বই আপনাদের কিনতে হয় না।বৃত্তি দিচ্ছি, উপবৃত্তি দিচ্ছি। প্রাইমারির বৃত্তির টাকা ১ কোটি ৪০ লাখ মায়ের মোবাইলে পাঠিয়ে দিচ্ছি।

আওয়ামী লীগের সভাপতি বলেন, প্রত্যেকটি এলাকায় পানির সুব্যবস্থা করে দিচ্ছি। দুবেলা পেট ভরে ভাত খাবেন। ছেলেদের পড়ালেখা করাবেন। কৃষকরা ১০টাকায় ব্যাংক একাউন্ট খুলতে পারে। কৃষকদের কার্ড দেয়া হয়েছে। কৃষক যাতে উৎপাদিত মূল্যের দাম পায় সে ব্যবস্থা করে দিয়েছি। কোনো জমি অনাবাদি থাকবে না।

শেখ হাসিনা বলেন, সৈয়দপুর এয়ারপোর্টের উন্নয়ন করছি। ইপিজেড করে দিয়েছি। ইকোনোমিক জোন করে দিচ্ছি। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশের উন্নয়ন হয়।

তিনি বলেন, আপনারা নৌকায় ভোট দেবেন। আবার যেন আপনাদের সেবা করতে পারি, আবার যেন আপনাদের জন্য কাজ করতে পারি। এটাই সবার কাছে আমার আবেদন।

দুপুর সাড়ে ১২টায় জনসভামঞ্চে যোগ দেন তিনি। ১২টা ৩২ মিনিট থেকে মাত্র ৭ মিনিট বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে ঢাকা থেকে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে এসে সড়ক পথে তারাগঞ্জে পৌঁছান তিনি।

এর আগে ঢাকা থেকে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে এসে সড়ক পথে তারাগঞ্জে পৌঁছান তিনি। এ সময় সড়কের দুই পাশে দাঁড়িয়ে দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানান।

তারাগঞ্জে নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণ শেষে সড়ক পথে তার শ্বশুরবাড়ি পীরগঞ্জে পৌঁছে দুপুর আড়াইটার দিকে ওই আসনর সংসদ সদস্য প্রার্থী স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর নির্বাচনী জনসভায় যোগ দিয়ে প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষণ দেয়ার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।