‘লাঙ্গল মার্কায় ভোট দেন, সব লাঙ্গল নৌকায় নিয়ে আসব’

শনিবার (২২ ডিসেম্বর) বিকাল ৪টার দিকে সিলেট আলিয়া মাদরাসা মাঠে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নির্বাচনী জনসভায় সিলেট বিভাগের সকল প্রার্থীদের জনগণের কাছে পরিচয় করিয়ে দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা মহাজোট হয়ে নির্বাচন করছি। আমাদের প্রার্থী শুধু নৌকাই নয়, আমাদের লাঙ্গলের প্রার্থীও আছে। লাঙ্গল মার্কায় ভোট দেন, সব লাঙ্গল নৌকায় নিয়ে আসব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প করেছি। হাওড় অঞ্চলের উন্নয়নে কাজ করছি। হাওড় অঞ্চলে বহুমুখী কাজ করার ব্যবস্থা করছি। আমরা প্রত্যেকটা মানুষের ভাগ্য বদলে কাজ করে যাচ্ছি। তারুণ্যই শক্তি, তরুণরদের নিউএই উন্নয়নের পথে এগিয়ে যেতে চাই।

তিনি বলেন, সিলেট উন্নয়নে অনেক কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। সিলেটের মানুষ যাতে সুন্দরভাবে বসবাস করতে পাড়ে সেভাবে আমাদের কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, মানবজাতিকে রক্ষা করেছিল নূহ নবীর নৌকা, সেই নৌকায় ভোট দিয়ে বাংলাদেশ স্বধিন হয়েছে। এই নৌকায় ভোট দিয়ে বাংলাদেশকে স্বচ্ছল করেছি। আজ বাংলাদেশ মানে উন্নয়ন। বাংলাদেশ মানে উন্নয়নের রোল মডেল।

‘জাতীর পিতা আমাদের স্বাধীনতা দিয়েছে। বিশ্বের কাছে আমরা মাথা উচু করে চলব, মাথা নিচু করে নয়। আমি দুর্নিতি করতে আসিনি, বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করতে এসেছি।‘

দীর্ঘ ১৭ বছর পর নির্বাচনী জনসভায় যোগ দিতে শনিবার সিলেট পা রাখেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার বেলা ১০টা ৫৫ মিনিটে তিনি সিলেটের ওসমানী বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। এখন সেখান থেকে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার জিয়ারতে যান।

পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে শাহপরাণ (রহ.) ও গাজী বোরহান উদ্দিন (রহ.) মাজার জিয়ারত শেষে সার্কিট হাউসে বিশ্রাম করেন।

জনসভা শেষে ফেরার পথে সিলেট ক্লাবে বিভাগের নৌকার প্রার্থী ও সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে শেখ হাসিনা মতবিনিময় করবেন বলে জানান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন।

তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা এবার সিলেট সফরে আসছেন সম্পূর্ণ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী হিসেবে। নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে সরকারি কোনো রকমের সুযোগ-সুবিধা নেয়া হচ্ছে না।