‘শুধু বিভাগই না, ফরিদপুরকে সিটি কর্পোরেশনও করা হবে’

স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, শুধু বিভাগই না, ফরিদপুরকে সিটি কর্পোরেশনও করা হবে। এই ফরিদপুরে একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় করবো ইনশাআল্লাহ।

তিনি বলেন, একাদশ সংসদ নির্বাচন জাতীর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই নির্বাচনে আমরা ফরিদপুরের চারটি আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী করে আবারো প্রমাণ করবো ফরিদপুরের মাটি ও মানুষ বঙ্গবন্ধু ও তার কন্যা শেখ হাসিনার জন্য নিবেদিত।

আজ বৃহস্পতিবার (২০ডিসেম্বর)) দুপুরে ফরিদপুর শহরের গোয়ালচামট এলাকায় আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে শহর আওয়ামী লীগের নির্বাচনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ সভায় সভাপতিত্ব করেন ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খন্দকার শাহিন আহমেদ।

মন্ত্রী বলেন, আমরা এ অঞ্চলের মানুষ দীর্ঘদিন অবহেলিত ছিলাম। গত দশ বছর সরকার প্রধান শেখ হাসিনা আমাদেও ব্যাপক উন্নয়ন দিয়েছেন। ফরিদপুর এখন আর আগের গেয় ফরিদপুর নেই। এজন্য সকলকে আবারো নৌকায় ভোট দিতে হবে।

তিনি বিএনপি জামায়াতের শাসনামলের কথা উল্লেখ করে বলেন, ফরিদপুরের মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে পারতো না। রাস্তঘাটের দূরাবস্থা ছিলো। ছিলো না ভাল স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। কিন্তু আজ সে অবস্থা থেকে শেখ হাসিনা আমাদের উত্তোরণ ঘটিয়েছেন।

মন্ত্রী বলেন, বিএনপি জামায়াতের সন্ত্রাসের কারণে সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাস উঠে গিয়েছিলো। একজন দরিদ্র মানুষ সারাদিন কষ্ট করে বাজার করে বাড়ি ফিরতে পারতো না। তারা গরিব মানুষের কাঁচা মরিচও কেড়ে নিতো।

তিনি বলেন, নৌকা মার্কায় ভোট দিলে যে মানুষ শান্তিতে থাকতে পারে সেটি প্রমাণ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের ফরিদপুরের যে উন্নয়ন কাজ করে দিয়েছেন তা বিগত ৪০ বছরেও সম্পন্ন হয়নি। আগামীতে আবারো নৌকা প্রতীক বিজয়ী হলে ফরিদপুরকে তিনি বিভাগ ঘোষণা করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী বরকত ইবনে সালাম, পৌর মেয়র শেখ মাহতাব আলী মেথু, জেলা যুবলীগের আহবায়ক এএইচএম ফোয়াদ, যুবনেতা চৌধুরী হাসান প্রমুখ। এসময় ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা, কোতয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্যা, সাধারণ সম্পাদক সামচুল আলম চৌধুরী প্রমুখ মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি