‘বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের সুযোগ দিন’

বুধবার দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এফবিসিসিআইয়ের উদ্যোগে ‘শান্তি ও সমৃদ্ধির পথে বাংলাদেশ’ শীর্ষক ব্যবসায়ী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট চাই। যেন উন্নয়নটা অব্যাহত রাখতে পারি। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে।

এসময় ২০২০ সালের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও ২০২১ সালের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী রাষ্ট্র ক্ষমতায় থেকে উদযাপন করার সুযোগ দিতে দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান তিনি। অনুষ্ঠান থেকে দেশের ব্যবসায়ী সম্প্রদায় আওয়ামী লীগ সরকারকে ব্যবসাবান্ধব হিসেবে আখ্যায়িত করে নৌকা মার্কার পক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে ভোট চাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারও রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনাকে দেখতে চায় ব্যবসায়ী গোষ্ঠী। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ধারাবাহিকতা, প্রবৃদ্ধি দুই ডিজিটে নিয়ে যাওয়া, বেসরকারী বিনিয়োগ আকৃষ্টে সরকারী বিনিয়োগ বৃদ্ধি, দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তর এবং টেকসই স্থায়িত্ব উন্নয়নে ৯০০ বিলিয়ন ডলারের অর্থ সংস্থান, রফতানি বাড়াতে কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার এবং বৈদেশিক কর্মসংস্থান বাড়াতে আবারও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় থাকা দরকার বলে মনে করছে এফবিসিসিআই। সরকারের ধারাবাহিকতা নষ্ট হলে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অর্জন বাধাগ্রস্ত হওয়ারও আশঙ্কাও করছে এই সংগঠনটি। এ কারণে আগামী সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনাকেই ফের সরকার গঠনের সুযোগ দিতে নৌকা মার্কায় ভোট প্রয়োজন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ব্যবসা করি না। ব্যবসায়ীরা যাতে ভালোভাবে ব্যবসা করতে পারে সেই পরিবেশ দেশে বিরাজ করছে। দেশে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল করে দিচ্ছি। শেখ হাসিনা বলেন, যেসব উন্নয়ন কাজ হাতে নিয়েছি তা সম্পন্ন করতে আন্তত আরেকবার সুযোগ চাই। নৌকা মার্কায় ভোট চাই।