‘ভিশন ২০৩০’, নির্বাচনী ইশতেহারে বিএনপির ১৯ অঙ্গীকার

আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছে বিএনপি। আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার পর রাজধানীর হোটেল লেকশোরে ইশতেহার ঘোষণা করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এর আগে সোমবার জোটগতভাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহার প্রকাশ করা হয়। নির্বাচনী ইশতেহারে ১৯ অঙ্গীকার করেছে বিএনপি।

ক্ষমতায় গিয়ে সরকার গঠন করতে পারলে এসব অঙ্গীকার বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপির নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা অনুষ্ঠানে দলটির সিনিয়র নেতারা উপস্থিত আছেন।

জানা গেছে, ২০১৭ সালের মে মাসে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপস্থাপন করা ‘রূপকল্প ২০৩০’-এর আলোকে দলটির নির্বাচনী ইশতেহার প্রণয়ন করা হয়েছে।

ইশতেহারে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন, বিচার বিভাগ, মতপ্রকাশের স্বাধীনতাসহ ১৯ অঙ্গীকার করা হয়েছে।

বিএনপির ইশতেহারে গুরুত্বারোপ করা ১৯ দফার অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে রয়েছে-ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ, অর্থনীতি, মুক্তিযোদ্ধা, যুব নারী ও শিশু, শিক্ষা ও কর্মসংস্থান, জ্বালানি, তথ্য ও প্রযুক্তি, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, বৈদেশিক ও প্রবাসীকল্যাণ, কৃষি ও শিল্প, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা, প্রতিরক্ষা ও পুলিশ, আবাসন, পেনশন ফান্ড ও রেশনিং ফান্ড প্রতিষ্ঠা, পরিবেশ, পররাষ্ট্র এবং ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর গুরুত্বারোপ।

ইশতেহার ঘোষণাকালে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ বিভিন্ন পেশাজীবী ও দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

‘ভিশন ২০৩০’-এর আলোকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ইশতেহার তৈরি করেছে বিএনপি।

‘এগিয়ে যাব একসাথে, ভোট দেব ধানের শীষে’- এ স্লোগান সামনে রেখে নির্বাচন উপলক্ষে দলটির ইশতেহার তৈরি করা হয়েছে।

এবারের ইশতেহারে তরুণ প্রজন্মের ভোটার টানতে তাদের বিভিন্ন চাহিদাকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

বিশেষ করে তরুণদের সাম্প্রতিককালের দাবি-কোটা সংস্কার, ভ্যাটমুক্ত শিক্ষা ও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের বিষয় প্রাধান্য দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বিএনপির প্রধান নির্বাচনী জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সোমবার বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে ৩৫ দফা ইশতেহার ঘোষণা করেছে।