‘ক্ষমতায় এলে চীন ও  রাশিয়ার সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও উন্নত হবে’

মঙ্গলবার সকালে হোটেল সোনারগাঁওয়ের বলরুমে ইশতেহার প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি দলটির পররাষ্ট্রনীতির বিষয়টি তুলে ধরেন। আবারও ক্ষমতায় এলে রাশিয়া ও চীনসহ আশিয়ানভুক্ত দেশগুলোর সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ও উন্নয়ন সহযোগিতা আরও জোরদার করা হবে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে স্থান পেয়েছে আওয়ামী লীগের ইশতেহারে।

ইশতেহারে আন্তর্জাতিক যেকোনো বিরোধ শান্তিপূর্ণ সমাধানের জন্য বাংলাদেশ অগ্রণী ভূমিকা রাখবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এতে ভারত সম্পর্কে বলা হয়েছে, দেশটির (ভারত) সঙ্গে তিস্তাসহ অভিন্ন নদীর পানি বণ্টন এবং দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য ও নিরাপত্তা সহযোগিতাসহ সকল ক্ষেত্রে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

পাশাপাশি ভারত-ভুটান-নেপালের সঙ্গে উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতার ভিত্তিতে জলবিদ্যুৎ উৎপাদন ও অভিন্ন নদীর অববাহিকাভিত্তিক যৌথ ব্যবস্থাপনা উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে বলেও ইশতেহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ভূ-খণ্ডে জঙ্গিবাদ, আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ ও বিচ্ছিন্নতাবাদী কোনো শক্তিকে প্রশ্রয় দেয়া হবে না। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় দক্ষিণ এশীয় টাস্কফোর্স গঠনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করা হবে বলে বলেছে আওয়ামী লীগ।

ইশতেহারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, জাপান ও কানাডাসহ উন্নত দেশগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগিতার সম্পর্ক আরও জোরদার ও ব্যাপক বিস্তৃত করার কথাও বলা হয়েছে।